দাড়িভিট হাইস্কুল

কলকাতা: ইসলামপুরের দাড়িভিট হাইস্কুলে গুলি চালনার ঘটনায় হস্তক্ষেপ করল হাইকোর্ট। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের কাছে রিপোর্ট চাইল তারা। দু’সপ্তাহের মধ্যে এই রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য সংস্কৃত এবং উর্দু শিক্ষক নিয়োগকে কেন্দ্র করে ২১ সেপ্টেম্বর উত্তপ্ত হয়ে ওঠে দাড়িভিট হাইস্কুল। পুলিশ-পড়ুয়া সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় স্কুল চত্বর। গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় রাজেশ সরকার নামে এক প্রাক্তন ছাত্রের। পরে হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাপস বর্মন নামে আরও এক প্রাক্তনীর। এই ঘটনায় অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে পরিস্থিতি।

নিহত ছাত্রদের পরিবারের দাবি করে, পুলিশের গুলিতেই মৃত্যু হয়েছে রাজেশ ও তাপসের। যদিও সেই অভিযোগ অস্বীকার করেন উত্তর দিনাজপুর পুলিশ সুপার। যদিও এই দাবি মানতে চায়নি নিহত ছাত্রদের পরিবার।

আরও পড়ুন কোথাও বিস্ফোরণ, কোথাও সংঘর্ষ, ভয়ের আবহে ছত্তীসগঢ়ে প্রথম দফার ভোট

গোটা ঘটনায় পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন তাঁরা।এই মামলার প্রেক্ষিতেই এ দিন রিপোর্ট তলব করল হাইকোর্ট।

উল্লেখ্য, এই ঘটনার পরে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পরে গত শনিবার খোলে স্কুল। তবে, সেদিনও স্কুল খোলা নিয়ে বিক্ষোভ দেখায় নিহত ছাত্রদের পরিবার ও গ্রামবাসী। রবিবার পুর স্কুল পরিষ্কার করে নতুন করে সাজিয়ে তোলা হয়। তারপর সোমবার থেকে ফের শুরু হয়েছে পঠনপাঠন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here