first rank holder granthan sengupta
গ্রন্থন সেনগুপ্ত।

ওয়েবডেস্ক: মাধ্যমিকের মতো উচ্চ মাধ্যমিকেও টেক্কা দিল পূর্ব মেদিনীপুর, সঙ্গে দোসর কালিম্পং। আর প্রথম স্থান পেল জলপাইগুড়ি জেলা স্কুল। ৫৮ দিনের মাথায় ফল প্রকাশ হল। সাড়ে ১০টা থেকে কাউন্সিলের ওয়েবসাইটে ফল জানা যাচ্ছে। এ দিনই মার্কশিট ও সার্টিফিকেট পেয়ে যাবে ছাত্রছাত্রীরা।

শুক্রবার সকাল ১০টায় উচ্চ মাধ্যমিক সংসদের তরফ থেকে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে ২০১৮-এর উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশ করা হয়। পাশের হার ৮৩.৭৫%, সংখ্যায় ৬ লক্ষ ৬৩ হাজার ৬১৬। এর মধ্যে আড়াই লক্ষেরও বেশি পাশ করেছে প্রথম বিভাগে।  বিগত কয়েক বছরের প্রবণতা অনুযায়ী পাশের হারে মেয়েরা যথারীতি এগিয়ে ছেলেদের চেয়ে। তবে সব জেলায় নয়, ১৮ জেলায়। মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যাতেও মেয়েরা এগিয়ে ছিল। যেখানে ৪৭% ছাত্র পরীক্ষা দিয়েছিল, সেখানে পরীক্ষার্থিনীর হার ছিল ৫৩%।

এ বার প্রথম হয়েছে কলা বিভাগ থেকে গ্রন্থন সেনগুপ্ত। সে জলপাইগুড়ি জেলা স্কুলের ছাত্র। পেয়েছে ৪৯৬, শতকরা হারে ৯৯.২%। তাঁর এই সাফল্যে একটি শোভাযাত্রায় অংশ নেয় স্কুলপড়ুয়ারা (মধুমন্তী চট্টোপাধ্যায়ের তোলা উপরের ভিডিও)।

দ্বিতীয় হয়েছে বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ঋত্বিক কুমার সাহু। তমলুক হ্যামিলটন স্কুলের এই ছাত্রের প্রাপ্ত নম্বর ৪৯৩, শতকরা হারে ৯৮.৬%। তৃতীয় হয়েছে দু’ জন – বর্ধমান মিউনিসিপ্যাল স্কুলের তিমিরবরণ দাস ও পশ্চিম মেদিনীপুরের রামকৃষ্ণ বিদ্যাভবনের শাশ্বত রায়। এঁরা পেয়েছে ৪৯০।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here