স্বামী ও স্বামীর প্রেমিকাকে ধরে দিক পুলিশ, আর্জি ডানকুনির গৃহবধূর।

ডানকুনি: গত ৫ জানুয়ারি থেকে নিখোঁজ স্বামী। স্ত্রীর অভিযোগ, ‘কাজ আছে’ বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আর ফিরে আসেননি তাঁর স্বামী। এলাকারই এক বিধবা মহিলাকে নিয়ে পালিয়েছেন তিনি। গোটা ঘটনায় তোলপাড় ডানকুনির রঘুনাথপুর এলাকা।

রঘুনাথপুর দক্ষিণ পাড়ার গৃহবধূ সুতিথি মণ্ডলের অভিযোগ, তাঁর স্বামী শুভ মণ্ডল গত ৫ জানুয়ারি সকালে ‘কাজ আছে’ বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। বাড়ি না ফেরায় বার বার ফোন করেও শুভর নাগাল পাননি সুতিথি। জানা যায়, বাড়ি থেকে বেরনোর সময় যাবতীয় নথিপত্রও সঙ্গে নিয়ে যান শুভ।

ঘটনায় প্রকাশ, এর পরই এলাকার এক বিধবা মহিলা রিমা চৌধুরীর সম্পর্কে জানতে পারেন সুতিথি। তাঁকেও কয়েক দিন ধরে এলাকায় পাওয়া যাচ্ছিল না। চার বছর আগে রিমার স্বামী মারা গিয়েছেন। তাঁর একটি ১১ বছরের সন্তানও রয়েছে।

সুতিথির অভিযোগ, ছেলেকে শ্বশুর এবং দেওরের কাছে রেখে শুভর সঙ্গে ঘর বাঁধতে বাড়ি ছেড়েছেন রিমা। এ ব্যাপারে না কি একটি কোর্ট পেপারে লেখা বয়ানও মিলেছে। তাতে রিমা লেখেন, তিনি শুভর সঙ্গে ঘর বাঁধবেন। তাঁর ছেলে ঈশানকে শ্বশুর আর দেওরের কাছে রেখে যাচ্ছেন। শুভই তাঁর সব দায়িত্ব নেবেন। রিমার শ্বশুর বিন্দেশ্বর চৌধুরী, দেওর ছোট্টু চৌধুরী-সহ রিমার ননদ এবং ননদাইয়ের সই রয়েছে সেই কোর্ট পেপারে।

এমন পরিস্থিতিতে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন সুতিথি। তাঁর আর্জি, স্বামী এবং রিমাকে খুঁজে বের করুক পুলিশ। শুভ-সুতিথির বছরখানেকের মেয়ে রয়েছে। সে বাবাকে খুঁজছে। শুভর বাবা দেবেন মণ্ডল বলেন, “ডানকুনি থানায় অভিযোগ করেছি। ছেলে ফিরে আসুক এটাই চাই”। পুরো ঘটনার তদন্তে নেমেছে ডানকুনি পুলিশ।

আরও পড়তে পারেন:

এই নিয়ে তৃতীয় মন্ত্রী হাতছাড়া হল যোগী আদিত্যনাথের, স্বাগত জানালেন অখিলেশ যাদব

ডেল্টার সঙ্গে যে সব উপসর্গের মিল রয়েছে ওমিক্রনের

তিন মাসের অপেক্ষা বাধ্যতামূলক! কোভিড আক্রান্তদের বিমা পলিসির জন্য জোর নতুন শর্তে

ঝুলেই রইল পুরভোটের ভবিষ্যৎ, রায়দান স্থগিত রাখল হাইকোর্ট

‘ওমিক্রন সাধারণ ঠান্ডা লাগার মতোই মৃদু’ বলেছিলেন শীর্ষস্থানীয় মহামারি বিশেষজ্ঞ, ‘মোটেই না’, বলল কেন্দ্র

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন