হাসপাতালের নিরাপত্তারক্ষীকে লোহার রড দিয়ে মারধরের অভিযোগ রোগীর আত্মীয়র বিরুদ্ধে

সৌম্যদীপ সাহা: মালদহ মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতালের তিন নিরাপত্তারক্ষীকে মারধরের অভিযোগ উঠল রোগীর আত্মীয়দের বিরুদ্ধে । এই ঘটনায় আঘাতপ্রাপ্ত তিনজনের মধ্যে প্রাথমিক চিকিৎসার পর দুই কর্মীকে ছেড়ে দেওয়া হলেও আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন একজন। জানা গিয়েছে, আক্রান্ত নিরাপত্তাকর্মীরা হলেন অনিল রায়, ছোটন ঘোষ ও মহম্মদ নুর । ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছালে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে অন্য নিরাপত্তারক্ষীরা পুলিশের হাতে তুলে দেন ।

ঘটনায় প্রকাশ, হরিশচন্দ্রপুরের বিকাশ পাল তাঁর আট মাসের শিশুকে গত শনিবার মালদহ মেডিকেলে ভরতি করেন । বিকাশবাবু বিকেলের দিকে শিশুটিকে দেখতে আসেন । কিন্তু দেখার সময় পেরিয়ে গেলেও হাসপাতালের ভেতরে থেকে যান তিনি ।

নিয়মানুয়ায়ী নিরাপত্তাকর্মীরা ওয়ার্ড থেকে বিকাশবাবুকে বাইরে বেরিয়ে যেতে বলেন । এর পরই বিকাশবাবু মহম্মদ নুর নামে ওই নিরাপত্তারক্ষীর মাথায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করেন বলে অভিযোগ । মহম্মদ নুরকে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হন অনিল রায় ও ছোটন ঘোষ । ঘটনায় গুরতর আহত হন মহম্মদ নুর । প্রাথমিক চিকিৎসার পর অনিল রায় ও ছোটন ঘোষকে ছেড়ে দেওয়া হলেও মহম্মদ নুর বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন বলে জানা গিয়েছে।

[ আরও পড়ুন: ভোটের আগের দিন বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা ভোটকর্মীর ]

এ প্রসঙ্গে হাসপাতালের নিরাপত্তাকর্মীদের সুপারভাইজ়ার জয়ন্তকুমার বোস বলেন, “রোগীদের সঙ্গে দেখা করার সময় অতিক্রান্ত হওয়ার পর বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে রোগীর পরিবারের লোকজনদের বাইরে নিয়ে আসার নিয়ম আছে আমাদের । সেই নিয়ম অনুযায়ী গতকাল রাতে মহম্মদ নুর রোগীর পরিবারের লোকজনদের বাইরে বের করে আনে । বিকাশ পাল নামে এক ব্যক্তি বাইরে আসতে রাজি না হলে মহম্মদ নুর তাঁকে ধরে অফিসে নিয়ে আসে । সেই সময় লোহার রড দিয়ে মহম্মদ নুরের মাথায় আঘাত করে বিকাশ । অভিযুক্তকে ইংরেজবাজার থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।”

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.