asim and chnadrabali
অসীম ও চন্দ্রাবলী। নিজস্ব চিত্র।

কলকাতা: দাবি ছিল সোনার হার। তা পাওযা যায়নি। সেই রাগে গৃহবধূকে কীটনাশক খাইয়ে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠল। নরেন্দ্রপুর থানায় এ নিয়ে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত করছে পুলিশ।

নরেন্দ্রপুর থানা এলাকার গোপালনগরের বাসিন্দা চন্দ্রাবলী মণ্ডলের সঙ্গে এক বছর আগে বিয়ে হয় অসীম দেবনাথের। অসীমের বাড়ি সোনারপুরের হরপুরে, পেশায় ইলেকট্রিক মিস্ত্রি। বিয়ের সময় মেয়ের বাড়ি থেকে ৩০ হাজার টাকা, খাট, আলমারি, সেলাই মেশিন, গয়না, আংটি, বাসনপত্র, মোবাইল ফোন, গ্যাসওভেন ইত্যাদি কিনে দেওয়া হয়। আরও নানা জিনিস দাবি করে বিয়ের পর থেকেই চন্দ্রাবলীকে অসীম মারধর করত বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুন তিন দিনব্যাপী আবৃত্তি-কর্মশালা শুরু হল বাঁকুড়ায়

সম্প্রতি কালীপুজোর মধ্যে সোনার হার দাবি করে অসীম। সেই হার না পাওযায় ভাইফোঁটার পরের দিন রাতে চন্দ্রার বাপের বাড়ি এসে রাস্তায় ডেকে মারধর করে চন্দ্রাকে। তাকে জোর করে শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানেই যা ঘটার ঘটে। সোমবার চন্দ্রাকে অসুস্থ অবস্থায় প্রথমে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে, তার পরে এনআরএস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চন্দ্রা সেখানে মারা গেলে হাসপাতালেই মৃতদেহ রেখে পালিয়ে যায় অসীম ও তার বাড়ির লোক। এমনকি হাসপাতালে ভুল নাম-ঠিকানাও দেয় তারা। চন্দ্রার বাড়ির লোক সব ঘটনা জানতে পেরে বুধবার হাসপাতাল থেকে দেহ নিয়ে আসে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here