আমতা: আনিস খান হত্যাকাণ্ডে আমতা থানার তিন পুলিশকর্মীকে সাসপেন্ড করা হল। এঁদের মধ্যে রয়েছেন একজন হোমগার্ড। সেই রাতে আনিসের বাড়ির কাছেই ডিউটিতে ছিলেন এই তিন জন।

পুলিশের দাবি, ‘তদন্তে স্বচ্ছতার স্বার্থেই’ এই পদক্ষেপ। একই সঙ্গে থানার ওসি এবং আরও এক অফিসারকে তলব করা হয়েছে ভবানী ভবনে। ঘটনার রাতে কর্তব্যে গাফিলতির যে অভিযোগ উঠেছে থানার বিরুদ্ধে, সে ব্যাপারেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে এই দু’জনকে।

সাসপেন্ড হওয়া পুলিশ কর্মীদের মধ্যে এক জন এএসআই (নির্মল দাস), এক জন কনস্টেবল (জিতেন্দ্র হেমব্রম) রয়েছেন। কাজ থেকে বসিয়ে দেওয়া হয়েছে হোমগার্ড কাশীনাথ বেরাকে। তিন জনই শুক্রবার রাতে থানার খাতায় সই করে প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম সঙ্গে নিয়ে রাউন্ডে বেরিয়েছিলেন। ওই রাতেই আমতার সারদা দক্ষিণ খাঁ-পাড়ায় বাড়ির তিনতলার ‘ছাদ থেকে পড়ে’ মৃত্যু হয় ছাত্রনেতা আনিসের।

তাঁর পরিবারের তরফে অভিযোগ ছিল, পুলিশের পোশাকে চার জন সে রাতে বাড়িতে ঢোকেন। আনিসকে তাঁরাই ছাদ থেকে ঠেলে ফেলে দিয়েছিলেন। সেই ঘটনার সঙ্গে মঙ্গলবারের সাসপেনশনের সরাসরি কোনো যোগ রয়েছে কি না তা অবশ্য এখনও স্পষ্ট নয়। তবে সাসপেন্ড করা তিন পুলিশকর্মী ছাড়াও, চতুর্থ এক ভিলেজ-পুলিশেরও খোঁজখবর চালাচ্ছেন তদন্তকারীরা

আনিসের মৃত্যুর তদন্ত প্রথমে হাওড়া গ্রামীণের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইন্দ্রজিৎ সরকারের নেতৃত্বে শুরু হয়েছিল। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী সোমবার এই তদন্ত করার জন্য বিশেষ তদন্তকারী দল তথা সিট গঠনের নির্দেশ দেন। তিন সদস্যের সিট-এ রয়েছেন রাজ্যের এডিজি (সিআইডি) জ্ঞানবন্ত সিংহ, ডিআইজি (সিআইডি) মিরাজ খালিদ এবং ব্যারাকপুরের যুগ্ম কমিশনার ধ্রুবজ্যোতি দে। ১৫ দিনের মধ্যে সিটকে রিপোর্ট পেশের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়তে পারেন:

হাতে ইভিএমের বাক্স, হলুদ শাড়ি পরে ভাইরাল সেই মহিলা ভোটকর্মী এ বার স্লিভলেস টপ আর ট্রাউজারে

এসএসসি গ্রুপ ডি কর্মী নিয়োগে দুর্নীতি মামলায় ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে রিপোর্ট তলব ডিভিশন বেঞ্চের

গভীর হল সংকট, পশ্চিমী সাবধানবানী উপেক্ষা করে ইউক্রেনের দুটি অঞ্চলকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি রাশিয়ার

রাশিয়া-ইউক্রেন সংঘাতে স্টক বিক্রির হিড়িক, আরও ধসতে পারে শেয়ার বাজার

ইউক্রেনের ‘স্বাধীন’ দুই অঞ্চলে বিনিয়োগে নিষেধাজ্ঞা জারি আমেরিকার

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন