কুমারীপুজোর কুমারী, বেলুড় মঠে। ছবি: রাজীব বসু।

নিজস্ব প্রতিনিধি: অষ্টমী তিথিতে কুমারীপুজোর চল রয়েছে বহু আশ্রম, মঠ ও বনেদি বাড়িতে। বাগবাজার সর্বজনীনের মতো কিছু সর্বজনীন পূজামণ্ডপেও কুমারীপুজো হয়। সেই প্রথা মেনেই মহাষ্টমীর সকালে কুমারীপুজো সম্পন্ন হল বেলুড় মঠে। এ বার বেলুড় মঠে হুগলির কোন্নগরের আরাত্রিকা রায়কে দেবী রূপে পূজা করা হয়েছে।

করোনার জেরে গত দু’ বছর ধরেই কুমারীপুজোয় বেলুড় মঠে দর্শকদের প্রবেশ নিষেধ। কিন্তু এ বার আর কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। ভক্তদের উপস্থিতিতেই বেলুড় মঠে দুর্গাপুজো হচ্ছে। কুমারী পুজো দেখতেও প্রচুর ভক্তের সমাগম হয়। সকাল ন’টার কিছুটা আগে আনা হয় ৫ বছর ৭ মাস বয়সের আরাত্রিকাকে। দেবী দুর্গার সামনে বসিয়ে তার আরাধনা করেন বেলুড় মঠের সন্ন্যাসীরা।

দেবী দুর্গার সামনে বসিয়ে আরাধন করা হয় কুমারীর। ছবি: রাজীব বসু।

২০০০ সাল পর্যন্ত বেলুড়ে কুমারীপুজো মন্দিরে অনুষ্ঠিত হলেও ২০০১ সাল থেকে পুজো শুরু হয় মন্দির লাগোয়া মাঠে। গত দু’ বছর করোনা পরিস্থিতির জেরে সেই পুজো ফিরে এসেছিল মূল মন্দিরের পশ্চিম বারান্দায়। এ বার আবার পুজো পুরোনো জায়গায় ফিরে এসেছে।     

উল্লেখ্য, ১৯০১ সালে বেলুড় মঠে কুমারী পুজোর সূচনা করেছিলেন স্বামী বিবেকানন্দ। মা সারদা দেবীর উপস্থিতিতে শঙ্খ, বাদ্য, অর্ঘ, বলয় ও বস্ত্রাদি সহযোগে নয়জন কুমারীর পুজো করা হয়েছিল। এর পর থেকেই বেলুড় মঠে কুমারী পুজো হয়ে আসছে।

আরও পড়তে পারেন

বুক স্টল ভাঙচুরের প্রতিবাদ সভা, অষ্টমীর সন্ধ্যায় গ্রেফতার বিকাশ, কমলেশ্বর-সহ একাধিক বাম নেতা

গান্ধীজির আদলে মহিষাসুর! বিতর্কের জেরে রাতারাতি পাল্টে গেল চেহারা

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন