hot and rain

কলকাতা: বুধবার এই মরশুমে একটা রেকর্ড করে ফেলল কলকাতা। রেকর্ডটি সর্বাধিক সর্বনিম্ন তাপমাত্রার। এর ফলে বুধবার সারা দিনই বজায় ছিল অস্বস্তিকর গরম। তবে সন্ধ্যার পর কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন অংশে ঝড়বৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে কিছুটা স্বস্তি ফিরলেও, বৃহস্পতিবার ফের অস্বস্তিকর গরমের সম্ভাবনা।

আলিপুরে বুধবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ২৯.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে যা তিন ডিগ্রি বেশি। এর ফলে বুধবার সকাল থেকেই বজায় ছিল গুমোট গরম। সকাল থেকেই ঘামতে হয়েছে মানুষকে। তবে সারা দিন মেঘলা থাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা তুলনায় কম ছিল। মেঘলা আবহাওয়া, সেই সঙ্গে অত্যধিক জলীয় বাষ্পের ফলে বিকেলের দিকে উত্তর কলকাতার কিছু অংশে স্থানীয় ভাবে বজ্রগর্ভ মেঘের সৃষ্টি হয়। সেই মেঘ থেকেই নামে বৃষ্টি। তবে সেই বৃষ্টি থেকে স্বস্তি কিছুই মেলেনি। তবে রাত সাড়ে আটটার কিছু পরেই ঘণ্টায় ৫০ থেকে ৬০ কিমি বেগে দমকা হাওয়া বয়ে যায়। সেই সঙ্গে মিনিট পনেরো ধরে বৃষ্টিও পায় শহর কলকাতা।

কলকাতায় আপাতত এ রকমই আবহাওয়া বজায় থাকবে। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের মতে, এই মুহূর্তে কলকাতা তথা সমগ্র দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া ঝড়বৃষ্টির অনুকূল। শনিবার পর্যন্ত রোজই কলকাতায় কালবৈশাখী বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এমনকি বুধবার রাতেও কালবৈশাখীর সম্ভাবনা রয়েছে কলকাতায়।

ঝড়বৃষ্টির জন্য কলকাতায় বেশি করে গাছ লাগানোর আবেদন 

তবে কালবৈশাখীর পরিস্থিতি অনুকূল থাকলেও তা যে কলকাতার ওপর দিয়ে বয়ে যাবেই তার কোনো ভরসা নেই। এপ্রিল থেকেই দেখা যাচ্ছে কলকাতার কাছাকাছি কালবৈশাখী এসেও তা কলকাতার পাশ কাটিয়ে চলে গিয়েছে। একমাত্র গত শনিবার প্রকৃত কালবৈশাখী পেয়েছিল কলকাতা। এর প্রধান কারণ হিসেবে কলকাতার বায়ুদূষণকেই দায়ী করছেন আবহাওয়া এবং পরিবেশবিদরা।

গত এক মাস ধরে বেশ কয়েক বার সমগ্র দক্ষিণবঙ্গ তথা কলকাতার ওপর দিয়ে কালবৈশাখী বয়ে যাওয়ার সতর্কতা দিয়েছিল বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা। কিন্তু দেখা গিয়েছে, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দক্ষিণবঙ্গের অন্য সব জেলায় ভালো ঝড়বৃষ্টি এলেও, কলকাতার পাশ কাটিয়ে চলে যাচ্ছে ঝড়। এ বিষয়ে সংস্থার কর্ণধার তথা আবহাওয়া বিশেষজ্ঞ রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা বলেন, “কলকাতার দূষণ এবং গাছ কেটে ফেলার ফলেই শহরের পাশ কাটিয়ে চলে যাচ্ছে ঝড়বৃষ্টি।” কলকাতাবাসীর কাছে আরও বেশি করে গাছ লাগানোরও আবেদন করেন তিনি।

তবে আগামী অন্তত দশ দিন কলকাতায় অস্বস্তিকর গরম বজায় থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭ থেকে ৩৮ ডিগ্রির মধ্যে ঘোরাফেরা করবে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন