Mukul roy bjp tmc

কলকাতা: মুকুল রায়কে পঞ্চায়েত নির্বাচনের দায়িত্ব সঁপে দেওয়ার পর কয়েক দিন না ঘুরতেই আশঙ্কা, সংশয় আর আতঙ্ক ঘিরে ধরল গেরুয়া শিবিরকে। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে মকুলবাবু যে পদ্ধতিতে ঘুঁটি সাজাতে চাইছেন, তা মোটেই সমসায়মিক রাজনৈতিক পরিস্থিতির সঙ্গে মানানসই নয়। তাঁর পুরোনো অভিজ্ঞতাকে অসম্মান না করলেও, ওই পদ্ধতিতে যে তৃণমূলের সঙ্গে পাল্লা দেওয়া যাবে না, সেই আশঙ্কাই প্রকাশ করছে দলেরই একাংশ।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি বিজেপি মুকুল রায়কে দলের পঞ্চায়েত ভোট কমিটির আহ্বায়ক নির্বাচিত করেছে। দু’দিন বাদেই তিনি দলীয় বৈঠকে নিজের রণকৌশলের বিশদ বিবরণ পেশ করেছেন। ২০১৩-তে তৃণমূল কংগ্রেস শাসকদলের আসনে থেকে যে পদ্ধতি অবলম্বন করেছিল, তাতে তাঁর অংশিদারিত্ব সর্বাগ্রে। আবার ২০০৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিরোধী দল হিসাবে তৃণমূল যে পন্থা নিয়েছিল তারও শরিক তিনি। তৎকালীন শাসক বামফ্রন্টের একচ্ছত্র দাপটের সামনে ঠিক যে কৌশলে বাহিনী সাজিয়েছিল তৃণমূল, তার উপরই তিনি এ বার জোর দিতে চাইছেন বলে নেতৃত্বকে জানান। কিন্তু গোড়াতেই গলদ রয়ে যাচ্ছে বলে ধারণা করছে ওই অংশটি।

তবে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে অসুস্থতার জন্য অব্যাহতি দিয়ে মুকুলবাবুকে এই দায়িত্বে নিয়ে আসা হলেও নেতৃত্ব কিন্তু বলছেন অন্য কথা। প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহা বলেন, পঞ্চায়েত ভোটে বিজেপি সম্মিলিত ভাবেই লড়বে। অবশ্য এর আগে দিলীপবাবুও মুকুল রায়ের উপর দায়িত্ব বর্তানো নিয়ে সাংবাদিকদের সামনে মেজাজ হারিয়ে বলেছিলেন, বিজেপি কোনো একজনের কথায় চলবে না। সবাই এক সঙ্গে লড়াই করবে।

স্বাভাবিক ভাবে পঞ্চায়েত নির্বাচনে রণকৌশল নির্মাণে মুকুলবাবু যতই মন দিন কার্যক্ষেত্রে তা বাস্তবায়নে কতটা সম্ভব হবেন, তা নিয়ে এখন থেকেই প্ৰশ্ন উঠছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন