Purulia

শুভদীপ চৌধুরী, পুরুলিয়া: জেলার হুড়ায় ১০০ দিনের প্রকল্পে অগ্রগতির কাজ সরেজমিন খতিয়ে দেখলেন প্রধান সায়নী দত্ত। ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে নিজের গ্রামপঞ্চায়েত এলাকার অগ্রগতির কাজ খতিয়ে দেখতে নিজের এলাকাগুলিতে পরিদর্শন করলেন নব নির্বাচিত প্রধান ।

প্রায়শই ১০০ দিনের কাজ নিয়ে ওঠে নানান অভিযোগ। ফলে দায়িত্ব হাতে পাওয়ার পরই এই কাজ কেমন হচ্ছে, শ্রমিকেরা ঠিকঠাক আসছেন কিনা তা খতিয়ে দেখেন সায়নীদেবী । একইসঙ্গে মজুরি হিসেবে শ্রমিকদের অ্যাকাউন্টে সরাসরি টাকা দেওয়া হচ্ছে কি না সে বিষয়েও খোঁজখবর নেন । একই সঙ্গে ১০০ দিনের কাজে কোনও রকম দুর্নীতি হচ্ছে কিনা, আদৌ সমস্ত শ্রমিক ঠিকমতো মজুরি পাচ্ছেন কি না, সে বিষয়গুলিও খতিয়ে দেখেন।

হুড়া গ্রামপঞ্চায়েত এলাকার টাঙিনোয়াদা-সহ হদলাগড়া ও হুড়ার ১,২ ও ৩ সম্বর সংসদে শুক্রবার সংশ্লিষ্ট প্রতিনিধি দল সঙ্গে নিয়ে হঠাৎ করেই পরিদর্শনে যান প্রধান । সঙ্গে যান রেগার কর্মী অসীম মাহাতো । তবে এ দিন আচমকায় কাজের যায়গায় প্রধানকে দেখা মাত্রই অবাক হয়ে যান কর্মরতরা । তাঁদের আশা, “প্রধান এই ভাবে ১০০ দিনের প্রকল্পের কাজ খতিয়ে দেখলে হয়তো কাজ আরও উন্নত হবে।”

অসমের গণহত্যাকাণ্ডে পুলিশি যোগের ইঙ্গিত!

সায়নীদেবী বলেন,”আমার গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় ১০০ দিনের কাজে যাতে কোনও রকম ভাবে কেউ অভিযোগের আঙুল তুলতে না পারে, তাই পুরো প্রক্রিয়াকে স্বচ্ছ রাখতেই আমার এই পরিদর্শন”। একইসঙ্গে তিনি এ দিন ঠিকাদারদেরও হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, “এলাকার গরিব মানুষদের দেওয়া এই কাজে কোনও করম ভাবে দুর্নীতি বরদাস্ত করব না।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here