কলকাতার নয়া পুলিশ কমিশনার রাজেশ কুমারের সঙ্গে মুকুল-যোগের জোর জল্পনা

0
Rajesh Kumar
রাজেশ কুমার। ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: দায়িত্বভার নেওয়ার দু’মাসের মধ্যেই শুক্রবার বিকেলে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে কলকাতার পুলিশ কমিশনারপদ থেকে সরে যেতে হয়েছে অনুজ শর্মাকে। তাঁর জায়গায় নিয়ে আসা হয়েছে দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের এডিজি রাজেশ কুমারকে। কমিশনের নির্দেশিকা জারির কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই কলকাতার নয়া পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের পুরনো যোগাযোগ নিয়ে জোর জল্পনা ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

জানা গিয়েছে, মুকুল রায় যখন রেলমন্ত্রী ছিলেন, তখন তাঁর ওএসডি বা অফিসার অন স্পেশাল ডিউটিপদে ছিলেন রাজীব কুমার। এমনটাও শোনা যায়, তাঁর এই মুকুল-যোগের কারণেই সাম্প্রতিককালে নতুন করে কোনো পদোন্নতি হয়নি রাজেশের। মুকুলবাবু তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরই তাঁকে অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বের পদে বদলি করে দেওয়া হয়েছিল। অন্তর্ঘাতের আশঙ্কাতেই রাজ্য সরকারের এ ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল বল গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে।

সূত্রের খবর, এডিজি সিআইডির পদ থেকে বদলির আগে রাজ্য পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান হিসাবে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তদন্তের দায়িত্বভার ছিল রাজেশের কাঁধে। সে সময় গুরুং-পন্থীদের আন্দোলনে জেরবার দার্জিলিংয়ের নিয়ন্ত্রণে বড়ো ভূমিকা নিয়েছিলেন তিনি। স্বভাবতই রাজ্য প্রশাসন তাঁর কাজে খুশি-ই ছিল। কিন্তু ২০১৭ সালে মুকুলবাবু বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই তাঁর কর্মজীবনের রেখচিত্র নিম্নমুখে ধাবমান হয় বলেই তাঁর ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে খবর।

সব মিলিয়ে সিআইডির এডিজি পদ থেকে তাঁকে অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বের পদে বদলি করার নেপথ্যেও কোনো রাজনৈতিক কারণ থাকতে পারে বলে মনে করে ওয়াকিবহাল মহল। মুকুলবাবুর অধীনে কাজ করার সময় তাঁর সঙ্গে রাজেশের সম্পর্কের কথা মাথায় রেখেই এহেন সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

[ আরও পড়ুন: কলকাতা ও বিধাননগরের পুলিশ কমিশনারকে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন ]

উল্লেখ্য,  ২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটের সময়েও তৎকালীন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে সরিয়ে কমিশন ওই পদে বসায় সৌমেন মিত্রকে। কিন্তু ভোটের পরই ফের ওই পদে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয় রাজীবকে।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন