প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

ওয়েবডেস্ক: খবরটা হাওয়ায় ভাসলেও ভাটপাড়ার প্রাক্তন বিধায়ক অর্জুন সিং বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরই প্রশ্নটা জোরালো হয়ে দেখা দিয়েছিল। শনিবার শুভ্রাংশু রায়ের একটি ফেসবুক পোস্টের জেরে যেন অনেকটাই স্পষ্ট হয়ে গেল বাবার পদাঙ্ক অনুসরণ করে তাঁর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা।

সোশ্যাল মিডিয়া মারফত খবর, ফেসবুকে শুভ্রাংশু রায় দু’লাইনের একটি পোস্ট করেছেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, “অপমান হতে হতে দেওয়ালে ঠেকেছে পিঠ, অগ্নিপরীক্ষা দিতে দিতে হৃদয়টা পুরো ঝলসে গেছে”। এ ধরনের গভীর অর্থনিহিত বাক্য তিনি ঠিক কী বোঝাতে লিখেছেন অথবা এটা মুকুল-পুত্রের নিজস্ব ফেসবুক অ্যাকাউন্ট কি না, সে ব্যাপারে বিশ্বস্ত কোনো তথ্য মেলেনি। কিন্তু ওই ফেসবুক পোস্ট ঘিরেই জল্পনা ছড়িয়েছে, তিনি সম্ভবত খুব শীঘ্রই বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন।

একটা মহল থেকে দাবি করা হয়েছে, তৃণমূলে লাগাতার অপমানিত হতে হচ্ছে মুকুল পুত্রকে। এমনকী তাঁকে দলের কোনও গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকেও ডাকা হচ্ছে না। আর অপমানের চরম সীমায় পৌঁছে গিয়েই তিনি দল ছেড়ে বাবার দলে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

যদিও অর্জুন বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর বেশ জোরের সঙ্গেই শুভ্রাংশু দাবি করেছিলেন, “আমি দলে ছিলাম, আছি, থাকব। যত দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলনেত্রী।” একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছিলেন, “বাংলার মানুষের মন জয় করা বিজেপির পক্ষে অসম্ভব। মুকুল রায়ও বাংলার মানুষের মন পাবেন না”।

জানা গিয়েছে, নিজের দলবদল প্রসঙ্গে এ দিনই সাংবাদিকদের কাছে শুভ্রাংশু বলেন, “যদি কাঁচরাপাড়ার প্রস্তাবিত রেলের কোচ ফ্যাক্টরি বিজেপি তৈরি করে এবং সেখানে বীজপুরের বেকার যুবকদের জন্য ৩০ শতাংশ চাকরির কোটা রাখে তা হলে আমি বিজেপিতে যোগ দিতে রাজি আছি”।

অন্য দিকে গত শুক্রবারই একটি দৈনিক সংবাদপত্রে দেওয়া সাক্ষাৎকারে স্পষ্ট কোনো জবাব না-দিলেও ওই প্রশ্নেই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন মুকুলবাবু। শুভ্রাংশুর দলবদলের প্রশ্নে তিনি বলেছিলেন, “একটু অপেক্ষা করুন”

সেই অপেক্ষারই অবসানের নতুন ইঙ্গিত দিলেন শুভ্রাংশু? কে জানে কী আছে এই ফেসবুক পোস্টে-

ছবি: সংবাদ প্রতিদিন থেকে

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here