panchayet

ওয়েবডেস্ক: প্রধান বিচার অনুমোদন মিলল। হাইকোর্টে পঞ্চায়েতের সন্ত্রাস নিয়ে মামলা দায়ের করলেন এক আইনজীবী।

রাজ্যের ৬৪ হাজার পুলিশ, কলকাতা পুলিশ ১২ হাজার, তারই সঙ্গে ভিন রাজ্য থেকে আসা দেড় হাজার পুলিশেও পঞ্চায়েতের ৬৬ শতাংশ আসনে রক্তহীন ভোট সারতে পারল না নির্বাচন কমিশন। প্রশ্ন উঠছে, সুপ্রিম কোর্টের রায়ে ৩৪ শতাংশ আসনে ভোট বন্ধ না হলে মৃতের সংখ্যা কোথায় গিয়ে দাঁড়াত? একই ভাবে প্রশ্ন উঠছে, হাইকোর্টের কাছে যে ভাএ পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার ‘মুচলেকা’ দিয়ে কমিশন ভোটের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, তা পালনে কি আদৌ সফল হয়েছে কমিশন।

স্বাভাবিক ভাবেই আদালতের বেঁধে দেওয়া নির্দেশিকা কতটা মানা হয়েছে সে বিষয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। যথারীতি ফের আদালতে যাওয়ার কথা ভাবছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। এ ব্যাপারে আদালতেরও সায় রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সূত্রের খবর, হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য পঞ্চায়েত ভোটের হিংসার লাইভ ভিডিও দেখেছেন। যদি কোনো আগ্রহী ব্যক্তির কাছ থেকে মামলার প্রস্তাব যায় তা বিবেচনা করে দেখার কথা জানা গিয়েছিল। সে দিকে তাকিয়েই ওই আইনজীবী আবেদন করলেন। কমিশন কী করল, কতটাই বা নিরাপত্তা দিতে সক্ষম হল পুলিশ-এমন প্রশ্নের উত্তর আদালত ছাড়া অন্য কোথায় মিলবে?

যদিও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক পঞ্চায়েত ভোটে সন্ত্রাস নিয়ে রিপোর্ট তলব করলেও কোনো নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের তরফে এখনও আদালতের কাছে এ বিষয়ে আবেদন জমা পড়েনি। তবে ফের একবার পঞ্চায়েত ভোটের আদালত গমনের জন্য অপেক্ষা চলছেই।

এক নজরে নিহতের বিবরণ:

  • নামখানার বুধখালি গ্রাম পঞ্চায়েতের ২১৩ নম্বর বুথের সিপিএম কর্মী দেবু দাসের বাড়িতে আগুন লাগায় দুষ্কৃতীরা। স্ত্রী ঊষা দাস-সহ অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু হয় দু’জনের। ঘটনাটি রবিবার রাত একটার।
  • আমডাঙার পাঁচতোড়ায় খুন হন সিপিএম কর্মী তৈবুর গায়েনের।
  • কুলতলির মেরিগঞ্জে খুন হন তৃণমূল সমর্থক আরিফ আলি গাজি।
  • বেলডাঙায় খুন হন বিজেপি কর্মী তপন মণ্ডল।
  • নাকাশিপাড়া থানার বিলকুমারী গ্রামে খুন হন তৃণমূল কর্মী ভোলা দফাদার।
  • মুর্শিদাবাদের নওদার পাটকেলবাড়িতে খুন হন নির্দল প্রার্থী সাহিন শেখ।
  • শান্তিপুরে বুথ দখল করতে গিয়ে গণপিটুনিতে মারা যান সঞ্জিৎ প্রামাণিক নামে এক যুবক।
  • নন্দীগ্রামের হাঁসচড়ায় খুন হন সিপিএম কর্মী অপু মান্না ও যোগেশ্বর ঘোষ।
  • নদিয়ার তেহট্টে সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে মৃত্যু ভোটারের।
  • গঙ্গারামপুরের সুখদেবপুর লেবুতলায় খুন হন ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির বিশ্বনাথ টুডু।
  • উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জের মারাইকুলায় তৃণমূল প্রার্থীর আত্মীয়া অমৃত সাহা গুলিতে মৃত।
  • কোচবিহারের গোপালপুরে ভোট হিংসায় নিহত আরও এক।
  • দক্ষিণ ২৪ পরগণার মন্দিরবাজার এলাকায় নির্দল প্রার্থীর আত্মীয় খোকন বৈদ্য নিহত। তৃণমূলের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন