পুর-জোট কাটাতে সব্যসাচীর গন্তব্য কি হাইকোর্ট!

0
sabyasachi dutta
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: বিধানগরের মেয়র সব্যসাচী দত্তের বিরুদ্ধে জমা পড়েছে অনাস্থা প্রস্তাব। গত মঙ্গলবার অনাস্থা নিয়ে আসার পর আগামী ১৮ জুলাই হতে পারে ভোটাভুটি। তার আগেই পুর-জোট কাটাতে সব্যসাচী কি হাইকোর্টে মামলা করতে পারেন? কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবীদের সঙ্গে তাঁর বৈঠকের সূত্র ধরেই উঠছে এমন প্রশ্ন।

বিদ্যুৎভবনের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে রাজ্যের মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের উদ্দেশে তীব্র কটাক্ষ করার পরই সব্যসাচীকাণ্ড অন্য মাত্রা পেয়ে যায়। বিধাননগর পুরসভার ৩৬ জন কাউন্সিলারকে নিয়ে বৈঠকে বসেন রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। সেখান থেকেই মেয়রের সাময়িক দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয় ডেপুটি মেয়র তাপস চট্টোপাধ্যায়ের হাতে। ওই দিনই বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সঙ্গে বৈঠক এবং নৈশভোজ সারেন সব্যসাচী।

মুকুল যে সব্যসাচীকে যে কোনো মূল্যে সহযোগিতা করছেন, সে কথা স্বীকার করা হয়েছে উভয় পক্ষের তরফেই। গত রবিবার সল্টলেকের বিএফ ব্লকের বিধাননগর সুইমিং অ্যাসোসিয়েশনের পুলে সাক্ষাৎ হয় তাঁদের। সেখানেই তাঁদের বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে সাংবাদিক বৈঠক করেন তাঁরা। ফের গত বৃহস্পতিবার বাড়িতে গিয়ে তাঁর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মুকুল। অনাস্থা নিয়েই যে তাঁদের কথা হয়েছে, সে বিষয়টিও স্পষ্ট করেন তৃণমূলের প্রাক্তন ‘নম্বর-২’ নেতা মুকুল। জটিলতা কাটাতে আইনের সহায়তা নেওয়ার বিষয়েও তাঁদের মধ্যে আলোচনা হয়।

গত বুধবারও পুরসভার কাউন্সিলারদের মাসিক বৈঠকে যোগ দেন সব্যসাচী। সেখানে তাঁকে চেয়ারপার্সন কৃষ্ণা চক্রবর্তীর পাশেই বসতে দেখা যায়। সব মিলিয়ে জল্পনা আরও জোরালো হয়।

তবে ভোটাভুটিতে আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে রেখেও তাঁর আইনজীবীদের দ্বারস্থ হওয়ার বিষয়টি নতুন ইঙ্গিত দিচ্ছে বলেই ধারণা করা হচ্ছে। তা হলে কি তিনি অনাস্থার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে মামলা করবেন?

যদিও এ বিষয়টি নিয়ে তিনি এখনও খোলাখুলি কিছু জানাননি। আইনজীবীদের পরামর্শ নিয়ে তিনি পরবর্তী পদক্ষেপ স্থির করতে পারেন বলে তাঁর ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে খবর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here