গরম থেকে সাময়িক রেহাই হয়তো মঙ্গলবার, এপ্রিলের শুরুতে প্রবল দুর্যোগের আশঙ্কা!

0

ওয়েবডেস্ক: গরম থেকে সাময়িক রেহাই দিতে মঙ্গলবার দুপুরের পর কালবৈশাখী বয়ে যেতে পারে দক্ষিণবঙ্গের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে। তবে এপ্রিলের শুরুতে প্রবল দুর্যোগের আশঙ্কা রয়েছে গোটা রাজ্যে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় কালবৈশাখী বয়ে যাওয়ার পর শনিবার থেকেই বাড়তে শুরু করে পারদ। সোমবার কলকাতায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা পৌঁছে গিয়েছে সাড়ে ৩৫ দিগ্রি সেলসিয়াসে। এই তাপমাত্রাটি স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। পশ্চিমাঞ্চলে গরমের দাপট আরও বেশি। এ দিন বাঁকুড়ায় পারদ উঠে গিয়েছে ৩৮ ডিগ্রিতে। পুরুলিয়াতে আরও একটু বেশি পারদ। তবে পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে এখনও ভোরের দিকে ঠান্ডা ঠান্ডা ব্যাপার রয়েছে। সোমবার ভোরে শ্রীনিকেতনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৭.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে সোমবার সারা দিন উত্তুরে হাওয়া বয়ে যাওয়ায় সে ভাবে অস্বস্তিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি।

আরও পড়ুন ভোটের মুখে ফের বোমা উদ্ধার আমডাঙায়

মঙ্গলবারও সর্বোচ্চ তাপমাত্রা স্বাভাবিকের বেশি থাকবে বলে জানিয়েছে বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা। সোমবারের মতোই সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হতে পারে দক্ষিণবঙ্গের জায়গাগুলিতে। তবে দুপুরের পরেই পালটাতে পারে পরিস্থিতি। উত্তর ভারত থেকে আসা পশ্চিমী ঝঞ্ঝার সঙ্গে বঙ্গোপসাগর থেকে বয়ে যাওয়া জলীয় বাষ্পের মিশেলে তৈরি হতে পারে বজ্রগর্ভ মেঘ। সেই মেঘ থেকে কালবৈশাখী ঝড় পশ্চিমাঞ্চল থেকে চলে আসতে পারে কলকাতায়। বুধবার সন্ধ্যায়ও এ রকম ভাবে বিক্ষিপ্ত ভাবে ঝড়বৃষ্টি হতে পারে। তবে তার পরেই ফের বাড়তে শুরু করবে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

এপ্রিলের শুরুতে দুর্যোগ

আবহাওয়ার বর্তমান পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে ওয়েদার আল্টিমা কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা জানাচ্ছেন, এপ্রিলের শুরু থেকেই দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া থাকতে পারে গোটা রাজ্যে। কয়েকটি জোরালো কালবৈশাখী ঝড়, প্রবল বৃষ্টি, বজ্রপাত এবং শিলাবৃষ্টির সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন তিনি।

তবে সেই ব্যাপারে বিস্তারিত পর্যবেক্ষণ এই সপ্তাহের শেষেই করা সম্ভব বলা রবীন্দ্রবাবু জানিয়েছেন। তবে একটা ব্যাপারে তিনি প্রায় নিশ্চিত, এপ্রিলের শুরুতে গরম নয়, দাপট দেখাবে ঝড়বৃষ্টি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here