টলিপাড়ায় ইউনিয়ন নিয়ে যুযুধান বিজেপি ও আরএসএস

0

কলকাতা: টলিপাড়ার ইউনিয়ন খোলা নিয়ে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব গেরুয়া শিবিরে। যুযুধান বিজেপি এবং আরএসএস। এক দিকে রয়েছে আরএসএসের শ্রমিক সংগঠন বিএমএস পরিচালিত বঙ্গীয় চলচিত্র পরিষদ আর অন্য দিকে রয়েছে ইস্টার্ন ইন্ডিয়া মোশন পিকচারস অ্যান্ড কালচারাল কনফেডারেশন। সেখানে রয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ স্বয়ং।

বঙ্গীয় চলচিত্র পরিষদের সভাপতি হিসেবে রয়েছেন রাজ্য বিজেপির সহ-সভাপতি বিশ্বপ্রিয় রায়চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন সদ্য বিজেপিতে আসা শঙ্কুদেব পন্ডা। আবার অন্য দিকে কনফেডারেশনের মঞ্চে দেখা গিয়েছে সাংসদ জর্জ বেকার, বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার, ফ্যাশন ডিজাইনার অগ্নিমিত্রা পল, অভিনেতা সুমন বন্দ্যোপাধ্যায়, সংঘমিত্রা চৌধুরীর মতো বিজেপির পরিচিত মুখকে।

গেরুয়া শিবিরের এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জট আরও পেকেছে সোমবার। এ দিন চলচ্চিত্র পরিষদের মঞ্চে হাজির করানো হয়েছিল বৈদ্য দেকে। বৈদ্য দের দাবি, কনফেডারেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি তিনিই। চলচ্চিত্র পরিষদের তরফে শঙ্কুদেব পন্ডা জানান, ইস্টার্ন ইন্ডিয়া মোশন পিকচারস অ্যান্ড কালচারাল কনফেডারেশন সংগঠনটি তাদের সঙ্গে যোগ দিল। যার সভাপতি বৈদ্যনাথ দে। অথচ গত শুক্রবার এই কনফেডারেশনের পথ চলা শুরু হয়েছে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের হাত ধরে।

কনফেডারেশনের ভাইস চেয়ারম্যান সংঘমিত্রা চৌধুরী অবশ্য অস্বীকার করেছেন বৈদ্য দের দাবি। তিনি জানিয়েছেন, ২৯ জুন সংগঠনের কিছু সংশোধনী প্রস্তাব নেওয়া হয়। বন্ধুত্বপূর্ণ আলোচনার মাধ্যমেই বৈদ্য দের বদলে অগ্নিমিত্রা পালকে কনফেডারেশনের নতুন সভাপতি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন গত পাঁচ বছর বর্ষায় এ রকম জুন দেখেনি দেশ!

এক দিকে, আরএসএসের শ্রমিক সংগঠন বিএমএস অনুমোদিত বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদকে মানতে নারাজ বিজেপি নেতৃত্ব। অন্য দিকে, কনফেডারেশনের আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে হাজির স্বয়ং দিলীপ ঘোষ। সেই কনফেডারেশনের বৈধতা নিয়ে আবার পরিষদের মঞ্চে প্রশ্ন তুলে দেওয়া হল। যদিও পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শঙ্কুদেব পন্ডা এ সব বিষয়ে মুখ খুলতে চাননি। আবার বিজেপির সংস্কৃতি সেলের আহ্বায়ক অভিনেতা সুমন বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদ নামে কোনো সংগঠনের কথা তাঁদের জানা নেই।

এর পরেই স্বভাবতই প্রশ্ন উঠতে শুরু হয়েছে, ইউনিয়ন তৈরি করার সময়েই যে ভাবে গেরুয়া শিবিরে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব শুরু হল, তাতে কি টলিপাড়ার মূল সমস্যাগুলির কোনো সুরাহা হওয়া আদৌ সম্ভব!

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.