তিন দিনে ৫০০ মিলিমিটার! বাংলার চেরাপুঞ্জি কি জলপাইগুড়ি

0

জলপাইগুড়ি: শুরু হয়েছিল ১৪০ মিলিমিটার দিয়ে, তার পর হল ১৫০ মিলিমিটার। সব শেষে ২০৪ মিলিমিটার। তিন দিনে প্রায় ৫০০ মিলিমিটার বৃষ্টিতে কার্যত জেরবার জলপাইগুড়ি শহর। প্রবল বৃষ্টিতে জলমগ্ন হয়ে পড়েছে শহরের বেশ কিছু অঞ্চল। তিস্তা এবং করোলা নদীর জলস্তর বাড়ায় মানুষের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। অবিলম্বে বৃষ্টি না থামলে পরিস্থিতি আরও ঘোরালো হয়ে যেতে পারে।

মৌসুমী অক্ষরেখা, ঘূর্ণাবর্তের প্রভাবে গত দিন পাঁচেক ধরে প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে উত্তরবঙ্গে। শুরুটা হয়েছিল পাহাড় দিয়ে, তার পর বৃষ্টির তেজ বেড়ে যায় সমতলে। প্রবল বৃষ্টির জেরে কার্যত নাকানিচোবানি খাচ্ছে উত্তরবঙ্গের পাহাড় এবং পাহাড়-লাগোয়া সমতলের জেলাগুলি।

শুধু জলপাইগুড়িই নয়, বৃষ্টির নিরিখে পিছিয়ে নেই শিলিগুড়ি এবং কোচবিহারও। শিলিগুড়িতে গত তিন দিনে বৃষ্টি হয়েছে মোট ৪০৫ মিমি আর কোচবিহারে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ তিন দিনে ৪১০ মিমি।

আরও পড়ুন নেপালের বন্যার প্রভাব পড়ছে বিহারে, আশঙ্কায় মালদা-মুর্শিদাবাদও

তিস্তা, তোর্সা-সহ একাধিক নদীর জলস্তর ভয়াবহ ভাবে বেড়েছে। নদীগর্ভে তলিয়ে গিয়েছে অনেক বাড়িঘর। ডুয়ার্সের একাধিক চা-বাগান জলের তলায়। বিপর্যস্ত সড়ক এবং রেল পরিষেবা। তবে খুশির খবর এই যে এই পরিস্থিতির মধ্যেও কোনো প্রাণহানি ঘটেনি।

এরই মধ্যে স্বস্তির খবর শুনিয়েছে আবহাওয়া দফতর। এই প্রবল বৃষ্টির দাপট আর বড়োজোর ২৪ ঘণ্টা। তার পর থেকেই ধীরে ধীরে উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির দাপট কমবে। সূর্যের মুখ দেখবে তামাম পাহাড় এবং ডুয়ার্স।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here