‘পোকামাকড়’ অন্য ক্ষেতে চলে গিয়েছে, দলত্যাগীদের স্পষ্টবার্তা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: শনিবার জলপাইগুড়ির নাগরাকাটার জনসভা থেকে ফের এক বার দলত্যাগীদের উদ্দেশে স্পষ্ট বার্তা দিলেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

অভিষেক বলেন, “ওরা ভাবছে, দল ভাঙিয়ে ক্ষমতায় আসবে। আরে, আমাদের তো পচা লোকগুলো চলে গিয়েছে। যারা গিয়েছে, তারা আসলে পোকামাকড়। আমাদের ক্ষেত ছেড়ে অন্য ক্ষেতে চলে গিয়েছে। এখন আমাদের ক্ষেত সুরক্ষিত। তারা চলে যেতে সবাই খুশি। কী আপনারা খুশি তো”?

Loading videos...

এখানেই না থেমে অভিষেক বলেন, “চোর চলে গিয়েছে, বাঁচা গিয়েছে, ভালো হয়েছে। এ বার কী হবে, লড়াইয়ের ময়দানে তো নেমে পড়েছে। কারা হারছে? আমাকে কিছু বলতে হবে না, মানুষের স্বত:স্ফূর্ততাই সব বলে দিচ্ছে। আমি বিজেপিকে বলব, এক বার শুধু নাগরাকাটায় এসে মানুষের এই শুনে যাক। পাগলা খাবে কী, ঝাঁঝেই মরে যাবে”।

তাঁর কথায়, “মানুষের এই সমর্থন যদি তৃণমূলের সঙ্গে থাকে, তা হলে কে এল আর কে গেল, কোনো ফারাক গড়তে পারবে না। ২০১৪ সালে যিনি বলেছিলেন, অচ্ছে দিন আগেঙ্গে, এখন তিনি বলছেন, সোনার বাংলা বানায়েঙ্গে। একের পর এক রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাকে বিক্রি করে দিচ্ছে। গরিবের রুটি ছিনিয়ে নিয়ে ১০ লাখি স্যুট পরছেন। একের পর এক মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন”।

বিজেপিকে নিশানা করে অভিষেক ভোটারদের উদ্দেশে বলেন, “বিজেপি টাকা দিয়ে সাংসদ, বিধায়ক কিনছে। মানুষের টাকা দিয়ে এ সব করছে। বাংলায় সিন্ডিকেট রাজের অভিযোগ তুলছে। এ সব তো ওদের দলেই রয়েছে। ভোটের সময় বিজেপি যদি টাকা দেয়, তা হলে সেই টাকা নিয়ে নিন। কিন্তু ভোটটা তৃণমূলকে দিন”।

ভোটে জিতে সোনার বাংলা গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বিজেপি। অভিষেক এ দিন বলেন, “সাত বছর ধরে কেন্দ্রের ক্ষমতায় থেকে মানুষের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে বিজেপি। এখন বলছে, সোনার বাংলা গড়বে। এর আগে কেন নিজেদের শাসিত রাজ্যগুলোকে সোনায় মুড়ে দিতে পারোনি?”

একই সঙ্গে তৃণমূল যুব সভাপতি বলেন, “কাকে ভোট দেবেন, সেটা আপনাদের সিদ্ধান্ত। আমরা কিন্তু মাথা নত করে পাঁচ বছর কাজ করব। আপনারা কি চান বাংলার মেয়ে দিল্লির কাছে মাথা নত করুক? বহিরাগতদের বশ্যতা স্বীকার করুক বাংলার মেয়ে, এটা কি চান? বহিরাগতদের যোগ্য জবাব দিতে হবে”।

আরও পড়তে পারেন: একুশের মহারণে নতুন স্লোগান প্রকাশ্যে আনল তৃণমূল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.