দু’ লক্ষের পালটা আড়াই লক্ষ, ধূপগুড়ির ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্ষতিপূরণের ‘লড়াই’ কেন্দ্র ও রাজ্যের শাসকের মধ্যে

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: প্রথমে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) ঘোষণা করেছিলেন দু’ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের। তার কয়েক ঘণ্টা পরেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) জানিয়ে দিলেন এই ঘটনায় মৃতদের পরিবারকে আড়াই লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।

মর্মান্তিক একটি দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজ্য এবং কেন্দ্রের শাসকের মধ্যে এমন ‘ক্ষতিপূরণের লড়াই’ লেগে গেল। এই ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ উগরে দিয়েছে বাম এবং কংগ্রেস। তবে তৃণমূলের দাবি, শুধুমাত্র ভোটের কথা মাথায় রেখেই ক্ষতিপূরণের কথা ঘোষণা করেছেন মোদী।

Loading videos...

কী বলেছিলেন মোদী

ধূপগুড়ির দুর্ঘটনা নিয়ে বুধবার সকালেই সরাসরি টুইট করেন মোদী। দুর্ঘটনায় মৃতদের পরিবারবর্গকে সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় ত্রাণ তহবিল থেকে মৃতদের পরিজনদের ২ লক্ষ টাকা করে এবং আহতদের এককালীন ৫০,০০০ টাকা করে সাহায্য দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেছেন মোদী।

ভারতের একটি অঙ্গরাজ্যের এক প্রান্তিক শহরে দুর্ঘটনায় মৃত্যু নিয়ে সাম্প্রতিক কালে প্রধানমন্ত্রী যে টুইট করেননি তা নয়। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে আসন্ন বিধানসভা ভোটের আবহে তাঁর ধূপগুড়ি সংক্রান্ত টুইট নিযে ‘রাজনৈতিক ব্যাখ্যা’ শুরু হয়ে গিয়েছে। তৃণমূলের দাবি, প্রধানমন্ত্রী এবং বিজেপি নেতারা বিষয়টি নিয়ে রাজনীতি করছেন।

এ দিন টুইটে মোদী লেখেন, “পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ির ধূপগুড়িতে পথদুর্ঘটনার ঘটনা অত্যন্ত যন্ত্রণাদায়ক। শোকগ্রস্ত পরিবারগুলির জন্য প্রার্থনা করি। আহতরা তাড়াতাড়ি সেরে উঠুন।”

মৃতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করে প্রধানমন্ত্রী লেখেন, “প্রধানমন্ত্রী জাতীয় ত্রাণ তহবিল থেকে পশ্চিমবঙ্গে দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারপিছু ২ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হবে। আহতরা মাথাপিছু ৫০ হাজার টাকা করে পাবেন।”

পালটা ঘোষণা মমতার

প্রধানমন্ত্রীর ক্ষতিপূরণের ঘোষণার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই পালটা ক্ষতিপূরণের কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। মৃতদের পরিবারপিছু আড়াই লক্ষ টাকা করে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন তিনি। বুধবার টুইটারে তিনি লিখেছেন, “ধূপগুড়িতে বাস দুর্ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। মৃত ব্যক্তিদের পরিবারের প্রতি আমার সমবেদনা। আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করি।”

মৃতদের পরিবারের পাশাপাশি আহতদের জন্য অর্থসাহায্যের ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। ওই দুর্ঘটনায় গুরুতর আহতদের জন্য ৫০ হাজার টাকা করে অর্থসাহায্যের প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। এ ছাড়া, সামান্য আহতদের ২৫ হাজার টাকা করে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী।

বুধবার পুরুলিয়ার বেলগুমা পুলিশ লাইনে একটি প্রশাসনিক সভা করেন মমতা। ওই সভা থেকেও ধূপগুড়ির ঘটনা নিয়ে শোকপ্রকাশ করেছেন তিনি। মমতা বলেন, ‘‘ধূপগুড়িতে একটা দুঃখজনক ঘটনা ঘটেছে। বিয়েবাড়ির গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে। মৃত ১৪ জনের পরিবারকে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে আড়াই লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছি। আজ অরূপ বিশ্বাসকে ওখানে পাঠাচ্ছি। গৌতম দেবও যাচ্ছেন। তাঁরা পৌঁছে এই ক্ষতিপূরণ প্রদানের বিষয়গুলি দেখে নেবেন।’’

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

ভোটের আগে নেতাজির জন্মদিবস পালন নিয়ে বিজেপি-তৃণমূল লড়াই

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.