‘একশো শতাংশ কাজ চাই, ঢিলেমি নয়’, উত্তরকন্যার প্রশাসনিক বৈঠকে স্পষ্ট বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর

0

শিলিগুড়ি: মঙ্গলবার ‘উত্তরকন্যা’য় জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার জেলার প্রশাসনিক বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। করোনা সতর্কতা মেনে চলার আহ্বান জানানোর পাশাপাশি এ দিন তিনি প্রশাসনিক কাজকর্মেরও খুঁটিনাটি খোঁজ নেন।

প্রায় আট মাস পর উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে প্রশাসনিক বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী। বৈঠকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে একগুচ্ছ সতর্কতার কথা তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, মৃত্যুহার কমলেও স্বাস্থ্যবিধি মোটেই কমানো যাবে না।

সামনে উৎসবের মরশুম। এ প্রসঙ্গে করোনা সতর্কতার কথা মাথায় রাখার জোর দিয়ে তিনি বলেন, “পুজো আসছে, কিন্তু সেই কারণে কোনো ভাবেই করোনাকে অবহেলা করা যাবে না। পরিস্থিতির উপর সব সময় নজর রাখতে হবে”।

অন্য দিকে এমন পরিস্থিতিতে কোনো রকমের গাফিলতিকে বরদাস্ত করা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “একশো শতাংশ কাজ চাই। জোর করে কোনো কাজ আটকানো নয়, ঢিলেমি নয়”। প্রতিটি দফতর এবং প্রকল্প ধরে অগ্রগতির খোঁজখবর নেন। কাজে গতি নিয়ে আসার পরামর্শ দেন।

উন্নয়নের বিষয়ে কড়া বার্তা দিয়ে এক প্রশাসনিক কর্তাকে রীতিমতো ধমকের সুরে তিনি বলেন, “ইন্সপেক্টর-রাজ বেশি চলছে, জনস্বার্থে কাজ কম হচ্ছে। আমি সব খোলনলচে পালটে দেব। একশো শতাংশ কাজ চাই, একশো শতাংশ অভিযোগের সমাধান করতে হবে”। একই সঙ্গে উদ্বাস্তুদের জমির সমস্যা থেকে শুরু করে শ্রম দফতরের যে সমস্ত অল্প কাজ বাকি রয়েছে, সে সব এক সপ্তাহের মধ্যে শেষ করার নির্দেশ দেন তিনি।

আলিপুরদুয়ার ও জলপাইগুড়িতে যাতে মানুষের উন্নয়নের কোনো কাজে গাফিলতি না হয় এবং যাতে দ্রুত শেষ করা যায়, সে ব্যাপারে পরিকল্পনা অনুযায়ী এগিয়ে আগামী তিন মাসের মধ্যে দুই জেলার সব কাজ শেষ করার জন্য ডিএম-এসডিও-বিডিওদের নির্দেশ দেন। প্রশাসনিক কর্তা, মন্ত্রী এবং স্থানীয় বিধায়কদের উদ্দেশে বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ যাতে সুষ্ঠু ভাবে চলে, সে ব্যাপারে দায়িত্বশীল হওয়ার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। একই সঙ্গে তিনি বলেন, “এমনিতেই এখন ভারী বর্ষা। অনেকগুলো নদী ডবুডুবু। এই ব্যাপারগুলোতে নজর রাখতে হবে”।

উত্তরবঙ্গের ৩৭০টি চা-বাগানের গৃহহীন শ্রমিকের জন্য নতুন প্রকল্পের উদ্বোধন, জল্পেশ মন্দিরের পুরোহিত বিজয় চক্রবর্তীর হাতে ভাতা তুলে দিয়ে এ দিন রাজ্যের পুরোহিত কল্যাণ প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক সূচনা করেন মমতা। পাশাপাশি কামতাপুরি ভাষা ও সংস্কৃতি উন্নয়নের জন্য কামতাপুরি ভাষা অ্যাকাডেমির পক্ষে অতুল রায়ের হাতে পাঁচ কোটি টাকার অনুদান তুলে দেন তিনি।

প্রসঙ্গত, আগামী বুধবার কোচবিহার, দার্জিলিং এবং কালিম্পং জেলার প্রশাসনিক পর্যালোচনা বৈঠকে অংশ নেবেন মুখ্যমন্ত্রী

https://www.facebook.com/MamataBanerjeeOfficial/videos/746565809529494/
dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন