ময়নাগুড়ি: ময়নাগুড়ির দোমোহনিতে ট্রেন দুর্ঘটনাস্থলে রাতভর চলল উদ্ধারকাজ। এমনকি ভোরের ঘন কুয়াশা উপেক্ষা করেই উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী, বিএসএফ, সশস্ত্র সীমা বল-এর জওয়ানরা। দুমড়ে মুচড়ে যাওয়া এবং লাইনের পাশে উল্টে থাকা ট্রেনের কামরাগুলি ক্রেনের সাহায্যে এক এক করে সরানোর কাজ শুরু হয়েছে। মৃতের সংখ্যা নতুন করে আর বাড়েনি।

কামরার ভিতরে আর কেউ আটকে আছে কি না, তা ভালো করেও খতিয়ে দেখছেন উদ্ধারকারীরা। শুক্রবার ভোরেই দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছে গিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জন বার্লা। তিনি বলেন, “উদ্ধারকাজ চলছে। কী ভাবে এই দুর্ঘটনা ঘটল, তার তদন্ত করা হবে।”

বৃহস্পতিবার রাতেই হাওড়া থেকে বিশেষ ট্রেনে দোমোহনির উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণো। তাঁর সঙ্গে আছেন রেলের উচ্চপদস্থ কর্তারা। শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থলে পৌঁছে যাওয়ার কথা রয়েছে তাঁর। তার আগেই দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বার্লা।

বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা নাগাদ লাইনচ্যুত হয় বিকানের-গুয়াহাটি এক্সপ্রেস। সেই ঘটনায় বৃহস্পতিবার মধ্য রাত পর্যন্ত ৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। আহত হয়েছেন বহু। আহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে ভরতি করানো হয়েছে।

আরও পড়তে পারেন

ময়নাগুড়িতে ট্রেন দুর্ঘটনায় আর্থিক ক্ষতিপূরণ ঘোষণা রেলের, আহত প্রায় ৫০, মৃত অন্তত ৭

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন