ঝাড়গ্রাম: দেড় মাসের মধ্যে দু’টি নতুন জেলা পেল পশ্চিমবঙ্গ। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি একুশতম জেলা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছিল কালিম্পং। মঙ্গলবার রাজ্যের নতুন জেলা হল ঝাড়গ্রাম।

এ দিন ঝাড়গ্রাম রাজ কলেজের মাঠে একটি অনুষ্ঠানে ঝাড়গ্রামকে নতুন জেলা হিসেবে ঘোষণা করার সময়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এ বার থেকে প্রতি বছর ৪ এপ্রিল ঝাড়গ্রাম দিবস হিসেবে পালন করা হবে।” অনুষ্ঠানমঞ্চে নতুন জেলার জন্য একগুচ্ছ প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী, যার মধ্যে অন্যতম ঝাড়গ্রাম জেলায় একটি বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণ করার আশ্বাস দেওয়া। মুখ্যমন্ত্রী জানান, বর্তমান সরকারের আমলে ঝাড়গ্রাম জেলায় ন’টি কলেজ এবং ছ’টি সুপার-স্পেশালিটি হাসপাতাল তৈরি হয়েছে। সেই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “স্থানীয় মানুষজন তিরন্দাজিতে পারদর্শী। তাদের জন্য তিরন্দাজির অ্যাকাডেমি তৈরি করা হবে। ছৌ নাচের প্রসারের জন্যও গুরুত্ব দেওয়া হবে।” নতুন জেলার জন্য উন্নয়নমূলক প্রকল্পের পেছনে রাজ্য সরকার দু’শো কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানমঞ্চে কৃষিজমির খাজনা মকুব করার ঘোষণার পাশাপাশি কেন্দ্রের কাছে মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, তারা যেন কৃষিঋণ মকুব করে। মাওবাদী দাপটের প্রসঙ্গ টেনে এনে অনুষ্ঠানমঞ্চে মমতা বলেন, “অনেক রক্ত ঝরেছে, আর নয়। সবাইকে নিয়ে উন্নয়নের কাজ করতে হবে।”

উল্লেখ্য, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা থেকে আটটি গ্রাম পঞ্চায়েত, আটটি ব্লক, একটি পুরসভা এবং দশটি থানা নিয়ে তৈরি হয়েছে এই নতুন জেলা ঝাড়গ্রাম। জেলাশাসক হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন আর অর্জুন। জেলার পুলিশ সুপার অভিষেক গুপ্ত। আগামী ৭ এপ্রিল দুর্গাপুর এবং আসানসোলকে নিয়ে তৃতীয় নতুন জেলা আত্মপ্রকাশ করবে রাজ্যে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here