farewell to municipality chairman
পুরপ্রধানকে বিদায়। নিজস্ব চিত্র।

সমীর মাহাত, ঝাড়গ্রাম: মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ায় মঙ্গলবার ঝাড়গ্রাম পুরসভার দায়িত্ব তুলে নিল মহকুমা প্রশাসন। এই পুরসভা শাসকদলের দখলেই ছিল। পুরপ্রধান ছিলেন বর্ষীয়ান রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব তথা ঝাড়গ্রাম রাজপরিবারের উত্তরসূরি শিবেন্দ্রবিজয় মল্লদেব ওরফে দুর্গেশ। এ দিন পুরসভা কার্যালয়ে তিনি যাবতীয় দায়িত্বভার প্রশাসনের আধিকারিকদের বুঝিয়ে দেন।এই উপলক্ষে বিদায়ী পুরপ্রধানকে সংবর্ধনাও দেন দলীয় কর্মী ও কাউন্সিলারেরা।

দায়িত্বভার নিয়েই পুর এলাকার সমস্যা ও অভিযোগের কথা শোনেন ঝাড়গ্রামের মহকুমাশাসক সুবর্ণ রায়চৌধুরী। সূত্রের খবর, সারা রাজ্যে ১৭টি পুরসভার নির্বাচনের সঙ্গে এই পুরসভাতেও একযোগে নির্বাচন হবে। তত দিন পর্যন্ত মহকুমা প্রশাসনই চালাবে পুরসভা।

আরও পড়ুন দলীয় কর্মসূচিতে আগামী সপ্তাহে জয়নগরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়

প্রশাসনিক পদে বসে ঝাড়গ্রাম পুরবাসীদের কী উপহার দেবেন মহকুমাশাসক? তিনি জানান, ঝাড়গ্রাম শহর অরণ্যসুন্দরী নামে পরিচিত। তাই তিনি এই শহরকে ‘গ্রিন সিটি’র মর্যাদা দেওয়ার উপরে জোর দেন। শহরে আর কোনো গাছ কাটা হবে না। পাশাপাশি শহরে থার্মোপ্লাস্টিক ব্যবহারের বদলে শালপাতার ব্যবহারে জোর দেওয়া হবে। একই সঙ্গে ঝাড়গ্রাম শহরের জলনিকাশি ব্যবস্থাকেও অগ্রাধিকার দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, “ঝাড়গ্রামের শালপাতা সারা রাজ্য যাচ্ছে, ব্যবহার হচ্ছে, অথচ এখানে থার্মোপ্লাস্টিক ব্যবহৃত হচ্ছে। এ ছাড়াও জনসাধারণের অভিযোগ শোনার জন্য পৃথক রুম খোলা হবে। বিভাগীয় আধিকারিকদের সঙ্গে তাঁরা যাতে যোগাযোগ করতে পারেন তার ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যাবতীয় উন্নয়নের ক্ষেত্রে সমস্ত কাউন্সিলারকে সঙ্গে নিয়েই কাজ করা হবে।”

এ দিকে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার হচ্ছেন ঝাড়গ্রামের বিধায়ক সুকুমার হাঁসদা। বর্তমানে তিনি পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন পর্ষদের সভাপতি। গত ১২ ডিসেম্বর সোমবার সকালে সল্টলেকের একটি বেসরকারি হাসপাতালে প্রয়াত হন ডেপুটি স্পিকার হায়দার আজিজ শফি। তাঁর মৃত্যুতে ডেপুটি স্পিকারের পদটি শূন্য হয়। ওই পদে প্রাক্তন পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়নমন্ত্রী সুকুমার হাঁসদাকে মনোনীত করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here