খবর অনলাইন-এর খবরের জের, ঝাড়গ্রামের সেই অনাথ কিশোরীর পাশে দাঁড়াল সামাজিক সংগঠন

0

সমীর মাহাত, ঝাড়গ্রাম: গত ২ জানুয়ারি ঝাড়গ্রামের মানিকপাড়া অঞ্চলের এক অনাথ কিশোরীর অসহায়তার খবর আমাদের সংবাদ মাধ্যমে তুলে ধরা হয়। প্রশাসনের এখনও কোনো হেলদোল না হলেও, অনাথ লোধা কিশোরীকে সাহায্যের হাত বাড়িতে দিল আদিবাসী জনজাতি কুড়মি সমাজ নামে একটি সামাজিক সংগঠন।

সোমবার সংগঠনের সদস্যরা কিশোরীর বাড়িতে চাল, ডাল, আলু-সহ বস্ত্র দিয়ে আসে। প্রসঙ্গত, বছর বারো-তেরোর এক অনাথ লোধা কিশোরী কার্যত ভিক্ষা করে নিজের ভাই-বোনকে বড়ো করছে। রেশনের ৩ কেজি চাল আর অনিশ্চয়তার ভিক্ষাই তাদের আহারের সম্বল। লোধা কিশোরীটি ঝাড়গ্রামের মানিকপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের পূর্বশোল গ্রামের দিপালী ভক্তা।

দিপালীর মা অনেক আগেই জন্ডিস আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হয়েছেন। গত বছর এমন সময়ে পাশের রাশুয়া গ্রামে ক্ষেতে মজুরের কাজে এসে বাবা আশু ভক্তার স্ট্রোকে মৃত্যু হয়। তখন থেকেই দিপালীরা দু’বোন, এক ভাই অনাথ হয়ে পড়ে।

দু’ভাই-বোনকে পেটে আহার দিতে রোজ পাশের গ্রামগুলিতে ভিক্ষা করতে বেরিয়ে পড়ে। চাল, মুড়ি জোগাড় করে কিছু চাল মুদি দোকানে দিয়ে রান্নার জিনিস কিনে নেয়। পড়াশোনা তো দূরঅস্ত এদের বেঁচে থাকাটাই অনিশ্চয়তা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

Shyamsundar

ওই দিন সংগঠনের রাজ্য সভাপতি শিবাজী মাহাত বলেন, “আমরা খবর থেকেই এই ঘটনার কথা জানতে পারি। এরা দু’বেলা খেয়ে-পরে অন্তত বেঁচে থাকুক। প্রশাসনের নজর দেওয়া দরকার। আমি লোধা সংগঠন গুলির সঙ্গে কথা বলব”।

মানিকপাড়া অঞ্চলের উপপ্রধান মহাশিস মাহাত বলেন, “আমাদের কাছে এ ধরনের কোনো খবর ছিল না। তবে শোনার পর জেলা প্রশাসনকে বিষয়টি জানাব”।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন