টাকা উদ্ধারের তদন্তে সিবিআই? ঝাড়খণ্ডের ৩ বিধায়কের আবেদন গৃহীত হল ডিভিশন বেঞ্চে

ধৃত কি নিজের ইচ্ছে মতো তদন্তকারী সংস্থা বেছে নিতে পারে? আবেদন গ্রহণ করল ডিভিশন বেঞ্চ!

0
হাওড়ায় উদ্ধার হওয়া টাকা। ফাইল ছবি

কলকাতা: ঝাড়খণ্ডের তিন বিধায়কের কাছ থেকে টাকা উদ্ধারের মামলায় নয়া মোড়়! কলকাতা হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ডিভিশন বেঞ্চের দ্বারস্থ ধৃতরা। শুক্রবার তাঁদের মামলা করার অনুমতি দিয়েছেন, প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ।

তদন্তের উপর স্থগিতাদেশ এবং তদন্তভার সিবিআই বা অন্য কোনো কেন্দ্রীয় সংস্থাকে দেওয়ার দাবিতে একক বেঞ্চের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে গিয়েছিলেন ঝাড়খণ্ডের তিন কংগ্রেস বিধায়ক। তবে সেই আবেদন খারিজ করেন বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, “সুপ্রিম কোর্টের একাধিক নির্দেশে বলা আছে যে অভিযুক্ত কখনও তদন্তকারী সংস্থা নির্বাচন করতে পারে না”।

যদিও হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে যেতে ধৃত তিন বিধায়ককে মামলা করার অনুমতি দিলেন প্রধান বিচারপতি। দ্রুত শুনানির আবেদন করা হয়েছে। পাশাপাশি তাঁরা একক বেঞ্চে জামিনের আবেদন করেন। খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি। বিচারপতি তীর্থঙ্কর ঘোষের একক বেঞ্চ আবেদনের শুনানির অনুমতি দিয়েছে। আগামী সোমবার শুনানি হতে পারে।

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাতে হাওড়া থেকে গ্রেফতার করা হয় ঝাড়খণ্ডের তিন কংগ্রেস বিধায়ককে। একটি গাড়িতে তাঁদের সঙ্গে ছিল ৪৯ লক্ষ টাকা। ধৃত তিন কংগ্রেস বিধায়ক রাজেশ কাশ্যপ, নমন দীক্ষিত এবং ইরফান আনসারিকে সাসপেন্ড করেছে কংগ্রেস। অভিযোগ, এই টাকা দিয়ে কংগ্রেসের বিধায়কদের কিনে ঝাড়খণ্ডের সরকার ভাঙার পরিকল্পনা হচ্ছিল।

সেই ঘটনার তদন্তভার হাতে নিয়েছে সিআইডি। রাজ্যের গোয়েন্দা বিভাগ সূত্রে দাবি, উদ্ধার হওয়া ৪৯ লক্ষ টাকাই শুধু নয়, তার আগেও কংগ্রেস বিধায়কদের টাকা দেওয়া হয়েছিল। গুয়াহাটি থেকে কলকাতার এক ব্যবসায়ীর কাছে আসত টাকা দেওয়ার নির্দেশ। ২৯ জুলাইয়ের আগে, গত ২০ জুলাই কংগ্রেস বিধায়ক ইরফান আনসারি ও রাজেশ কচ্ছপ গুয়াহাটি গিয়েছিলেন। অভিযোগ, সেখান থেকে তাঁরা কলকাতায় ফিরে ব্যবসায়ী মহেন্দ্র আগরওয়ালের থেকে নেন ৭৫ লক্ষ টাকা।

পাশাপাশি, তিন কংগ্রেস বিধায়কের গ্রেফতারির ঘটনায় নাম জড়িয়েছে অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মার। কংগ্রেসের অভিযোগ, মহারাষ্ট্রের মতো ঝাড়খণ্ডেও টাকা দিয়ে সরকার ফেলার ছক কষছে বিজেপি। ধৃত বিধায়কদের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল অসমের মুখ্যমন্ত্রীর। যদিও ঘোড়া কেনাবেচার অভিযোগ উড়িয়ে হিমন্তর পাল্টা দাবি, কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গেও তাঁর সম্পর্ক আছে। তবে সেটা ব্যক্তিগত, রাজনৈতিক নয়।

আরও পড়তে পারেন:

পরবর্তী প্রধান বিচারপতি হচ্ছেন উদয় উমেশ ললিত! জানুন তাঁর দেওয়া ৩টি তাৎপর্যপূর্ণ রায়

তাইল্যান্ডের নাইটক্লাবে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নাচতে নাচতেই ঝলসে মৃত ১৩

এনআইএর হাতে গ্রেফতার দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গী ছোটা সাকিলের আত্মীয়

সৌন্দর্যের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে বদলি হলেন তামিলনাড়ুর পাঁচ পুলিশকর্মী

পার্থর মেয়ে-জামাইকে ইমেল করে কলকাতায় ডেকে পাঠাল ইডি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন