কলকাতা: রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসক নিগ্রহের প্রতিবাদে এক ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করল ডাক্তারদের যৌথ মঞ্চ। শনিবার রাজ্যের প্রায় সর্বত্র এই কর্মবিরতির কম-বেশি প্রভাব পড়ে। দুপুর ১২টা-১টার  এই কর্মসূচিতে অংশ নেয় ডব্লিউবিডিএফ, এসএসইউ, এএইচএসডি, ডিওএফওডি এবং ডিওপিএ-সহ অন্যান্য ডাক্তার সংগঠন।

চিকিৎসক সংগঠনের তরফে জানানো হয়, বিগত কয়েক মাস ধরেই নিরবচ্ছিন্ন ভাবে আক্রান্ত হতে হচ্ছে চিকিৎসকদের। সরকারি-বেসররকারি হাসপাতাল নির্বিশেষে আক্রান্ত হয়েছেন চিকিৎসক এবং চিকিৎসা পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত কর্মীরাও। তারই প্রতিরোধে এ দিনের এই কর্মবিরতি।

এ দিনের কর্মসূচির সর্বাগ্রে ছিল সিএমআরআই হাসপাতালে কর্মরত অন্ধ্রপ্রদেশের এক জুনিয়র ডাক্তার শ্রীনিবাসকে কলকাতা পুলিশের ওসি পুলক দত্তের মারধরের ঘটনায় পর্যাপ্ত শাস্তির দাবি। গত ২৮ আগস্ট সিএমআরআই হাসপাতালে ভর্তি পুলকবাবু শ্রীনিবাসকে মারধর করেন বলে অভিযোগ। আন্দোলনরত ডাক্তারদের অভিযোগ, ঘটনার পর ১০ দিন কেটে গেলেও অভিযু্ক্তের বিরুদ্ধে কোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এমনকি তাঁর বিরুদ্ধে এফআরআই দায়ের করতে গেলেও বাধার সম্মুখীন হতে হয়েছে।

Doctors

উল্লেখ্য, গত ৫ সেপ্টেম্বর এই এক ঘণ্টার কর্মবিরতির ডাক দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তার আগের দিন ভয়াবহ ভাবে মাঝেরহাট সেতুর একাংশ ভেঙে পড়ায় মানবিক দিক থেকে দিন পরিবর্তন করা হয়। পাশাপাশি ডাক্তারদের পক্ষে জানানো হয়েছে, এ দিনের কর্মসূচির জেরে কোনো অ্ত্যাবশ্যকীয় পরিষেবায় প্রভাব পড়েনি। কোনো জায়গাতেই সমস্ত বিভাগ বন্ধ রাখা হয়নি। বেশির ভাগ জায়গাতেই অত্যাবশ্যকীয় বিভাগগুলি সম্পূর্ণ ভাবে খোলা ছিল।


আরও পড়ুন: মহানগরে ফের গণধর্ষণের শিকার তরুণী, ধৃত ২

যদিও সাধারণ রোগীর পরিজনদের অভিযোগ, সারা রাজ্য জুড়েই বেশ কয়েকটি সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালের আউ‌টডোর বন্ধ থাকার কারণে চরম হয়রানির শিকার হতে হয়। কোথায়ও সম্পূর্ণ তো কোথাও আংশিক বন্ধ ছিল আউটডোর পরিষেবা। বিশেষত কলকাতায় চিকিৎসা করাতে আসা শহরতলির রোগীদের দুর্ভোগে পড়তে হয় বলে অভিযোগ।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন