শুভদীপ চৌধুরী, পুরুলিয়া: সত্যাজিৎ রায়ের “হীরক রাজার দেশ” পুরুলিয়ার জয়চণ্ডী পাহাড়ে সূচনা হল পর্যটন উৎসবের । আনুষ্ঠানিক ভাবে শুক্রবার বিকেলে পাহাড়ের পাদদেশে “সত্যজিৎ রায় মঞ্চে” উৎসবের উদ্বোধন করেন রঘুনাথপুরের মহকুমা শাসক আকাঙ্ক্ষা ভাস্কর । উপস্থিত ছিলেন রঘুনাথপুর পুরসভার পুরপ্রধান ভবেশ চট্টোপাধ্যায়-সহ প্রমুখ সমাজসেবী জয় বন্দ্যোপাধ্যায়, গৌতম রায়-সহ মেলা কমিটির সভাপতি তরণী বাউরি ও সম্পাদক মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী প্রমুখ ।

২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি, ২০১৯ পাঁচ দিন ধরে এই উৎসব চলবে । এ বার এই উৎসব ত্রয়োদশ বর্ষে পদার্পণ করল । অন্যান্য বারের তুলনায় এ বারের উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে অনেক বেশি উৎসাহী পর্যটক এসেছেন মেলা প্রাঙ্গণে । এ বার গুপী-বাঘার ৫০ বছর পূর্তি, তাই এ বার এই জয়চণ্ডী পাহাড় পর্যটন উৎসবের আলাদা আকর্ষণ ।

Joychandi
পর্যটন উৎসবের সূচনা

প্রসঙ্গত, রাজ্যের পর্যটন মানচিত্রে পুরুলিয়া রঘুনাথপুরের জয়চণ্ডী পাহাড় কে তুলে ধরতে ২০০৬ সালে বাম আমলে জয়চণ্ডী পাহাড় পর্যটন উৎসব সূচনা করেছিলেন প্রাক্তন সাংসদ বাসুদেব আচারিয়াI এই জয়চণ্ডী পাহাড়ে সত্যজিৎ রায়ের “হীরক রাজার দেশে” ছবি তৈরি হয়েছিল। কাল্পনিক চিত্রনাট্যের তৈরি করতে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর এই পাহাড়কে বেছে নেন পরিচালক সত্যজিৎ রায়। তখন থেকে এই জয়চণ্ডী পাহাড়কে “হীরক রাজার দেশ” বলে অনেকেই চিনতেন। হীরক রাজার এই দেশকে রাজ্যের পর্যটকদের কাছে তুলে ধরতেই ২০০৬ সালে জয়চণ্ডী পাহাড় পর্যটন উৎসব সূচনা হয়েছিল। ১৩ বছর আগে শুরু হওয়া এই মেলা প্রথমে জাঁকজমক ও পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড় থাকলেও একাংশের মতে, বর্তমানে ক্রমাগতভাবে তার নিজস্ব জৌলুস হারাতে চলেছে এই মেলা।

এ ব্যাপারে আদ্রার এক বাসিন্দা তথা জয়চণ্ডী উৎসবে ঘুরতে আসা এক পর্যটক অজিত দাস বলেন, প্রচারের অভাব ও আয়োজকদের সমন্বয়ের অভাবে ক্রমশ জৌলুস হারাচ্ছে পুরুলিয়ার রঘুনাথপুরের জয়চণ্ডী পাহাড় পর্যটন উৎসব। এই এক দশকেরও পুরনো পর্যটন মেলা নিয়ে সরকারের আরও বেশি মনোযোগী হওয়া প্রয়োজন বলে তিনি মনে করেন।

আরও পড়ুন: জয়চণ্ডীতে দূষণরোধে সরেজমিন পর্যবেক্ষণে মহকুমাশাসক-সহ পুলিশ-প্রশাসনের আধিকারিকরা

যদিও কলকাতার বাগুইআটি থেকে আসা এক দল পর্যটক জানান, এই জয়চণ্ডী পাহাড়ের সুন্দর-মনমুগ্ধকর প্রাকৃতিক দৃশ্য তাঁদের হৃদয় কেড়ে নিয়েছে। তাঁদের আরো খুব ভালো লাগছে, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হাজার হাজার মানুষ সরল-সহজ মনে কোনো রকম নিরাপত্তা ছাড়াই ঘোরাফেরার সুযোগ পাচ্ছেন দেখে। তাঁদের আশা, আগামী দিনে রঘুনাথপুরের এই জয়চণ্ডী পাহাড় পর্যটন উৎসব কেবল রাজ্যের পর্যটন মানচিত্রে নয় ,দেশ-বিদেশেও স্থান করে নেবে ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here