কলকাতা: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শনের স্নাতকোত্তর দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র সৌমিত্র দে-র ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেন হোস্টেল থেকে। ঝুলন্ত অবস্থায় তার কানে ছিল হেডফোন। রবিবার সকাল ১১.৩০ নাগাদ হোস্টেলের বি ব্লকের ৯ নম্বর রুমে সৌমিত্রকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে পুলিশকে খবর দেয় মৃত ছাত্রের বন্ধুরা। দেহ ময়না তদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।

বাঁকুড়ার ছেলে সৌমিত্র গ্র্যাজুয়েট হয়েছিল বেলুড় বিদ্যামন্দির থেকে। শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্ডিয়ান মেটাফিজিক্সের পরীক্ষাও দিয়েছিল সে। শনিবার বিকেলে তাকে হোস্টেলের ক্যাম্পাসে ফোনে কথা বলতে দেখা গিয়েছিল। সন্ধে সাড়ে সাতটা নাগাদ তার বন্ধু সৌমিত্র দে তাকে ডাকতে গেলেও সাড়া পায়নি। সুজিত ভাবে কানে হেডফোন থাকার জন্যই শুনতে পাচ্ছে না সৌমিত্র।

বেলা সাড়ে এগারোটায় হোস্টেলে মধ্যাহ্নভোজ হয়, সেই কারণে তাকে রবিবার ডাকতে গিয়েছিল বন্ধুরা। তখনই তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রাথমিক ভাবে সুইসাইড বলে মনে হলেও, কী কারণে সুইসাইড তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার জানিয়েছেন, মৃত ছাত্রের বাড়ির লোককে খবর দেওয়া হয়েছে, তারা আসছেন। ময়না তদন্তের রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত কিছু বলা যাবে না।  উপাচার্য সুরঞ্জন দাস বলেন,  এটি অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here