কলকাতা: যতটা গর্জাল ততটা বর্ষাল না। পুলিশের বাধায় যোধপুর পার্কেই থেমে গেল এবিভিপির মিছিল। তবে অধ্যাপক-অধ্যাপিকাদের অভিনব মানববন্ধনের মধ্যে দিয়ে ফের একবার শিরোনামে চলে এল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়।

বাবুল সুপ্রিয়র হেনস্থা কাণ্ডের প্রতিবাদে সোমবার মিছিলের ডাক দিয়েছিল এবিভিপি। কিন্তু গোলপার্ক থেকে শুরু হওয়া এবিভিপির মিছিল যোধপুর পার্কে আটকে দেয় পুলিশ। মিছিল আটকানোর জন্য স্টিলের ব্যারিকেড করেছিল পুলিশ। বেশ কিছুক্ষণ ধস্তাধস্তি হওয়ার পর রাস্তায় বসে পড়েন এবিভিপি সমর্থকরা।

এ দিন গেরুয়া শিবিরের মিছিল আটকাতে সকাল থেকেই প্রস্তুত ছিল পুলিশ। প্রস্তুত রাখা হয়েছিল জলকামান, টিয়ার গ্যাসের সেল। কিন্তু সে সব ব্যবহার করতে হয়নি পুলিশকে।

এবিভিপির মিছিলের কথা শুনে রবিবারই পড়ুয়ারা ডাক দিয়েছিল পালটা জমায়েতের। তাঁদের সংহতি জানাতে এগিয়ে আসেন যাদবপুরের অধ্যাপক-অধ্যাপিকারাও। এ দিন সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চার নম্বর গেটে জমায়েত শুরু হয় পড়ুয়াদের। বেলা বাড়তে রাস্তায় নেমে আসে সেই জমায়েত। তৈরি হয় মানববন্ধন। অধ্যাপক-অধ্যাপিকাদের মানববন্ধনের সেই ছবি এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল।

আরও পড়ুন শহরে আসছেন অমিত শাহ, এক কথায় সভার অনুমতি রাজ্যের

অন্য দিকে এবিভিপির মিছিলকে কেন্দ্র করে যতটা গোলমালের আশঙ্কা করা হচ্ছিল তা হয়নি। তবে মিছিল আটকালে এবিভিপি কর্মীরা ইটবৃষ্টি করেন। এতে একজন পুলিশকর্মীর মাথায় আঘাত লেগেছে বলে জানা গিয়েছে। তবে বেশ কিছুক্ষণ অবস্থানের পরে রণে ভঙ্গ দেয় তারা।

তবে দিনের শেষে সংবাদ শিরোনামে সেই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। ছাত্রছাত্রী ‘সুরক্ষিত’ করে যে ভাবে সামনে দাঁড়িয়ে পড়লেন অধ্যাপকরা তা বাহবা কুড়িয়েছে অসংখ্য মানুষের।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন

1 COMMENT

  1. I know JU faculties how these people behaved, what going on inside the chamber of faculty, it is shameful to all teaching communities, investigation will prove what’s goes inside , shame shame shame . Communisms never stands anywhere,

Comments are closed.