বনগাঁ পুরসভা অনাস্থা মামলায় কঠিন মন্তব্য হাইকোর্টের বিচারপতির

0
প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

ওয়েবডেস্ক: বনগাঁ পুরসভার অনাস্থা প্রস্তাব এবং ভোট নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় কঠিন মন্তব্য করলেন উভয় পক্ষের উদ্দেশেই।

এ দিন গঙ্গারামপুর পুরসভার অনাস্থা ভোট নিয়ে শুনানির সময় তিনি মন্তব্য করেন, কেন বারবার এ ধরনের ঘটনা ঘটছে। এমন মন্তব্য শোনার পর রাজ্য সরকারি আইনজীবীরা তাঁর এজলাস বয়কটের হুঁশিয়ারি দেন। তাঁরা বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়ের ১১ নম্বর এজলাস বয়কট‌ করার সিদ্ধান্ত নেন। এর পরই কড়া প্রতিক্রিয়া জানান সমাপ্তিদেবী।

তিনি বলেন, “মামলাকারী কাউন্সিলারদের অনাস্থার প্রক্রিয়া শুরু নির্দেশ দিয়েছিলাম আমি। আশ্চর্য হচ্ছি, কী ভাবে নির্দেশের অমর্যাদা করা হল। আমি অনাস্থা প্রস্তাবের প্রক্রিয়া শুরুর অনুমতি দিই। বাকি কাউন্সিলারদের অনুমতি দিইনি। অথচ তাঁরা কী ভাবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করল”?

একই সঙ্গে তিনি বলেন, “অনাস্থা প্রস্তাবের মামলাকারীরা উপস্থিত না থাকলে বৈঠকের দিন পিছিয়ে দেওয়াই শ্রেয়। আমি আইনের পথেই নির্দেশ দিয়েছি। আমার যে আসনে বসে রয়েছিল, তার সঙ্গে ন্যায়বিচার করাই আমার কর্তব্য। ফলে আমার নির্দেশ কারও পছন্দ না-হলে তিনি প্রধান বিচারপতির কাছে আবেদন করতেই পারেন”।

অন্য দিকে সরকারি আইনজীবীদের এজলাস বয়কটের হুঁশিয়ারি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমি আমার জায়গা থেকেই নির্দেশ দিয়েছি। ফলে কেউ আমার এজলাস বয়কট করলে তাতে আমার কিছু যায়-আসে না”।

আরও পড়ুন: হাইকোর্টের বিচারপতির রাজনৈতিক মন্তব্য! এজলাস বয়কটে রাজ্যের আইনজীবীরা

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার বিজেপির দায়ের করা মামলার শুনানিতে বনগাঁ পুরসভার চেয়ারম্যান শংকর আঢ্যকে উদ্দেশ্য করে নজিরবিহীন ভাষায় ভর্ৎসনা করেন বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়। বনগাঁ পুরসভার আস্থাভোট নিয়ে বিজেপির দায়ের করা মামলার শুনানিতে বিচারপতি বলেন, “আপনি (চেয়ারম্যান) এত নির্লজ্জ কেন? ফল ভোগ আপনাকে করতেই হবে”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.