দার্জিলিং: পঞ্চাশ শতাংশ স্ট্রাইক রেট রাখল তৃণমূল। গোর্খা আঞ্চলিক পরিষদ (জিটিএ)-এর ভোটে মাত্র দশটা আসনে লড়ে পাঁচটা জিতে নিল তারা। তবে এই ভোটে বাজিমাত করল অনীত থাপার ভারতীয় গোর্খ্যা প্রজাতান্ত্রিক মোর্চা (বিজিপিএম)। পঁয়তাল্লিশটার মধ্যে সাতাশটা আসনে জিতে বোর্ড গঠন করতে চলেছে তারা।

গত ২৬ জুন জিটিএ-এর নির্বাচন হয়। এই ভোট বয়কট করেছিল গোর্খ্যা জনমুক্তি মোর্চা এবং বিজেপি। কিন্তু পুরোদমে অংশগ্রহণ করেছিল পাহাড়ের নতুন রাজনৈতিক দল বিজিপিএম, তৃণমূল, হামরো পার্টি এবং বাকি দলগুলি। বুধবার তার ভোট গণনা হয়।

ভোট গণনার শুরু থেকেই এগিয়ে ছিল বিজিপিএম। গত ফেব্রুয়ারিতে দার্জিলিং পুরসভার ভোটের ফলাফল দেখে মনে করা হচ্ছিল যে বিজিপিএমের সঙ্গে হামরো পার্টির প্রবল লড়াই হবে। কিন্তু ফল বেরোতেই দেখা গেল বিশেষ কোনো সুবিধা করতে পারেনি গ্লেনারিজ-এর মালিক অজয় এডওয়ার্ডের দল হামরো পার্টি।

বিজিপিএমের ২৭ আসনে জয়লাভের পাশাপাশি হামরো পার্টি জিতেছে ৮টা আসনে। হামরো পার্টির দাপট একদমই দার্জিলিং কেন্দ্রিক ছিল। তৃণমূল জিতেছে পাঁচটা আসনে। বাকি পাঁচটা আসনে জিতেছেন নির্দলরা।

দার্জিলিংয়ের ব্লুমফিল্ড থেকে জয়লাভ করেন তৃণমূলের মদন তামাং। ৫০০-র বেশি ভোটে জিতেছেন তিনি। বিনয়ের সুরে তামাং বলেন, ‘‘এই জয়ের জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। এ শুধু আমার জয় নয়। পাহাড়ের মানুষের জয়।” এ ছাড়া, মিরিকের দুটি আসন, কালিম্পংয়ের একটি আসন এবং সমতলের সুকনা আসনে জিতেছে তৃণমূল।

বিজিপিএমের অনীত থাপা জিতেছেন নিজের কেন্দ্র থেকে। ফলে মনে করা হচ্ছে জিটিএ-এর নতুন বোর্ডের মাথায় তিনিই বসতে চলেছেন।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন