রাজ্যে নিজেদের প্রথম শাখা খুলেই ‘গোর্খাল্যান্ড’ উসকানি বিজেপির শরিকের

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: পাহাড়ে শাখা খুলল নতুন একটি রাজনৈতিক দল। পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে এরা নতুন হলেও দেশের রাজনীতিতে নয়। কারণ এই দলটিই বিজেপির সমর্থনে মেঘালয়ে সরকার গঠন করেছে।

দলটির নাম ন্যাশনাল পিপল্‌স পার্টি (NPP)। মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমা (Conrad Sangma) এই দলের নেতা। বৃহস্পতিবার কালিম্পঙে নিজেদের প্রথম শাখা খুলেছে এনপিপি। আর তার পরেই ‘গোর্খাল্যান্ড’ উসকানি দিতে শুরু করেছে তারা।

দিন কুড়ি আগেই গোর্খাল্যান্ডের দাবিকে সমর্থন জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে (Amit Shah) চিঠি দিয়েছিলেন সাংমা। এর পরেই পাহাড়ের রাজনীতিতে তাদের আবির্ভাব। ওই চিঠিতে সাংমা লিখেছিলেন, “গোর্খারাও ভারতীয় নাগরিক। নিজেদের বাসভূমির (গোর্খাল্যান্ড) অধিকার রয়েছে তাদেরও।”

এনপিপির উত্তরবঙ্গ শাখার সমন্বয়ক কেনজা ফোনিং বলেন, “আমাদের দলের দীর্ঘদিনের দাবিই হল বাকি পশ্চিমবঙ্গের থেকে দার্জিলিং আর কালিম্পংকে আলাদা করে দেওয়া।”

তবে এনপিপিকে বিশেষ পাত্তা দিতে রাজি নয় গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার বিনয় তামাংপন্থী শাখা। দলের মুখপাত্র কেশব রাজ পোখরেল বলেন, “৮০-এর দশকে পিএ সাংমা যখন মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, তখন অসংখ্য গোর্খাকে ওই রাজ্য থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল। খুব অদ্ভুত ব্যাপার যে তাঁর ছেলে এখন গোর্খাদের জন্য কাঁদুনি গাইছেন।”

এই নিয়ে, সাংমা দ্বিতীয় মুখ্যমন্ত্রী যিনি গোর্খাল্যান্ডের (Gorkhaland) দাবিকে সমর্থন জানালেন। ২০১১ সালে এই দাবিকে সমর্থন করেছিলেন সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী পবন চামলিং।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী কোভিড পজিটিভ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন