দশ বছর পর ফের পুরোনো রূপে কান্তি গঙ্গোপাধ্যায়, দুর্গতদের সাহায্যে দোরে দোরে ঘুরলেন প্রাক্তন মন্ত্রী

ওয়েবডেস্ক: তখন তিনি ছিলেন মন্ত্রী। কিন্তু এখন শুধুমাত্র দলীয় এক নেতা। তবুও ভূমিকা এক রকমই। দশ বছর পর আবার দুর্গত সুন্দরবনবাসীর ত্রাতা হয়ে উঠলেন কান্তি গঙ্গোপাধ্যায়।

শনিবার আছড়ে পড়া অতি ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে সুন্দরবনে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। হিঙ্গলগঞ্জ, ঝড়খালি, সন্দেশখালি এলাকায় ঝড়ের প্রভাব সব চেয়ে বেশি। তবে বুলবুল আছড়ে পড়ার আগেই রাস্তায় নেমে পড়েন কান্তিবাবু।

রায়দিঘির প্রত‍্যন্ত গোরাগাছি এলাকায় মানুষের দরজায় দরজায় ঘুরতে দেখা যায় কান্তিবাবুকে। রায়দিঘির প্রাক্তন বিধায়ককে সকলের ঘরে ঢুকে খোঁজখবর নিতে দেখা যায়।

বয়স্ক বা খুদে কেউ থাকলে তাদের এখনও কেন ত্রাণশিবিরে পাঠানো হয়নি, সেই নিয়েও খোঁজ নেন কান্তিবাবু। তাঁকে বলতে শোনা যায়, “বাড়িতে বুড়ো বাচ্চা আছে কেউ? এখনও এখানে কী করছিস? স্কুলে পাঠিয়ে দে।”

আরও পড়ুন গভীর রাতে বুলবুলের তাণ্ডবে বেসামাল কলকাতা, পড়ল ৫০ গাছ

আয়লার সময়ে কান্তিবাবুকে যে ছবিতে দেখা গিয়েছিল, সে রূপেই এ বারও তাঁকে দেখা গেল। পুরোনো মেজাজে সাদা ধুতি হাঁটুর ‌ওপর তুলে দরজায় দরজায় ঘুরছেন তিনি।

এলাকায় কান্তিবাবুর স্ত্রীর নামে তৈরি ‘জবাবিরাজ জ্ঞানায়ন পাঠশালা’-তে সব রকম ব‍্যবস্থা করা হয়েছে। এখনও পর্যন্ত ২০০ জন ঠাঁই নিয়েছেন ওখানে। রাখা হয়েছে মেডিকেল ক‍্যাম্প। ওখানেই দুর্গত মানুষকে ত্রাণ দেওয়া হচ্ছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.