এক মাস পিছলেও বইমেলা হচ্ছে, উদ্বোধন ২৮ ফেব্রুয়ারি

0

কলকাতা: করোনার দাপট ক্রমশ কমছে পশ্চিমবঙ্গে। আগামী দেড় মাসের মধ্যে তা প্রায় তলানিতেই এসে যাবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এই পরিস্থিতিতে কলকাতা বইমেলা উদ্বোধনের দিন এক মাস পিছিয়ে দিল গিল্ড। তবে দিনক্ষণ পিছিয়ে দেওয়ার পেছনে করোনার পাশাপাশি বিধাননগর পুরনিগমের ভোট একটা কারণ। আবার বাংলাদেশের একুশে বইমেলাও একটা কারণ থাকতে পারে।

সোমবার সন্ধ্যায় একটি বিবৃতি দিয়ে গিল্ড জানিয়েছে যে ৩১ জানুয়ারির বদলে এ বার বইমেলা উদ্বোধন হবে ২৮ ফেব্রুয়ারি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আলোচনার পরেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে তারা জানিয়েছে।

করোনা সংক্রমণের আবহে রাজ্যের চারটি পুরনিগমের ভোট ২২ জানুয়ারি থেকে পিছিয়ে আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি করা হয়েছে। বিধাননগর পুরনিগমও রয়েছে সেই তালিকায়। গিল্ডের একটি সূত্রে জানাচ্ছে, এই পরিস্থিতিতে সেখানে বইমেলার আয়োজন হলে নির্বাচনী বিধিভঙ্গের অভিযোগ ওঠার আশঙ্কা ছিল। কারণ, ১৫ ফেব্রুয়ারি গণনার দিন পর্যন্ত সেখানে নির্বাচনী আচরণবিধি বলবৎ থাকবে। যা বইমেলার আয়োজনে বাধা হতে পারে।

পাশাপাশি এ বারের বইমেলার থিম কান্ট্রি বাংলাদেশ। ফলে সে দেশ থেকে অসংখ্য প্রকাশক আসার কথা। কিন্তু বিধাননগরের পুরভোট মিটলেও, তখন আবার ঢাকায় একুশে বইমেলা চলবে। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশ থেকে প্রকাশকদের কলকাতায় আসাটা সমস্যার হয়ে যেত। ফলে কিছুটা হলেও জৌলুস হারাত এ বারের মেলা।

সেই সব বিবেচন করেই তাই ফেব্রুয়ারির এক্কেবারে শেষ দিনে মেলার উদ্বোধনের দিনক্ষণ রেখেছে গিল্ড। তবে মেলা কতদিন চলবে, সে ব্যাপারে কিছু জানানো হয়নি। মঙ্গলবার এই বিষয়ে আলোচনা করতে, বৈঠকে বসতে পারে গিল্ড।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, করোনা সংক্রমণের কারণে ২০২১ সালে বইমেলা হতে পারেনি। শেষ আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা হয়েছিল ২০২০ সালে। গত বছররের নভেম্বরের গোড়ায় গিল্ডের তরফে ঘোষণা করা হয়েছিল, কোভিড-১৯ বিধি সম্পূর্ণ মেনে ৩১ জানুয়ারি থেকে সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্কে হবে ২০২২ সালের মেলার আয়োজন। সেটা করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের জন্য পিছিয়ে গেলেও অবশেষে যে হচ্ছে, বইপ্রেমীদের কাছে সেটাই অত্যন্ত আনন্দের খবর।

আরও পড়তে পারেন

করোনার দাপট কমতেই জিম-যাত্রায় ছাড় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের, তবে টুরিস্ট স্পট এখনও বন্ধই

অতি দ্রুততায় কমছে করোনার দাপট, পশ্চিমবঙ্গে সংক্রমণ ১০ হাজারের নীচে, কলকাতায় ২ হাজারের নীচে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন