ফের ১১-এর ঘরে কলকাতা, দার্জিলিং আর কাঁথির তাপমাত্রার ফারাক এক ডিগ্রিরও কম

0

কলকাতা: বেশ কিছু দিন পর আবার ১১ ডিগ্রির ঘরে ঢুকে গেল কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। তবে সোমবার চমক অন্য জায়গায়। এই দিন হিমালয়ের কোলে দার্জিলিং আর সমুদ্র ঘেঁষা কাঁথিতে তাপমাত্রার ফারাক ছিল মাত্র ০.৮ ডিগ্রি।

সোমবার দার্জিলিংয়ে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৫ ডিগ্রি। স্বাভাবিকের থেকে এই তাপমাত্রাটি কিছুটা বেশি। অন্য দিকে দিঘার কাছে কাঁথির তাপমাত্রা ছিল ৫.৮ ডিগ্রি। রাজ্যের আবহাওয়ার ইতিহাসে এই ধরনের চমক আদৌ কখনও হয়েছে কি না, তা জানতে রেকর্ড বই বের করা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই।

শুধু দার্জিলিংকে টেক্কা দেওয়াই নয়, গোটা রাজ্যের মধ্যে এ দিন দ্বিতীয় শীতলতম স্থানের তকমাও পেয়ে গিয়েছে কাঁথি। কারণ প্রবল ঠান্ডা পড়া পশ্চিমাঞ্চলেও এ দিন তাপমাত্রা ছিল তুলনামূলক ভাবে বেশি।

কাঁথি যখন হিমালয়ের সঙ্গে টেক্কা দিচ্ছে, তখন কলকাতাও কম যায় না। কারণ সে টেক্কা দিয়েছে ওই পশ্চিমাঞ্চলেরই সঙ্গে।

এ দিন কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১১.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপমাত্রাটি স্বাভাবিকের থেকে তিন ডিগ্রি কম। অন্য দিকে আসানসোল আর বাঁকুড়ার তাপমাত্রা ছিল যথাক্রমে ১০.৮ এবং ১০.৭ ডিগ্রি।

অর্থাৎ, কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে যা ঠান্ডা পড়েছে, তুলনামূলক ভাবে কম ঠান্ডা ছিল পশ্চিমাঞ্চলে। আর এ সব হয়েছে বাংলাদেশে অবস্থানরত একটি ঘূর্ণাবর্তের জন্য।

বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার মতে, ওই ঘূর্ণাবর্তের প্রভাবে সিকিম এবং ভুটানের ঠান্ডা উত্তুরে হাওয়া নেমে এসেছে দক্ষিণবঙ্গে। সাধারণ ভাবে উত্তরপশ্চিম ভারতের ঠান্ডা হাওয়া নেমে আসে এই অঞ্চলে। কিন্তু এই মুহূর্তে একটি শক্তিশালী পশ্চিমী ঝঞ্ঝা রয়েছে উত্তর ভারতে। তার প্রভাবে ওই দিক থেকে ঠান্ডা হাওয়ার গতিবেগ কিছুটা কমেছে।

আরও পড়ুন নির্ভয়া-কাণ্ডে ফাঁসির চূড়ান্ত প্রস্তুতি তিহাড়ে

সে কারণেই পশ্চিমাঞ্চলের তাপমাত্রা বেড়েছে। আবার যে হেতু উত্তরপূর্ব ভারত থেকে ঠান্ডা হাওয়া দক্ষিণবঙ্গের বায়ুমণ্ডলে ঢুকে পড়েছে, সে কারণে তাপমাত্রা অনেকটাই কম কলকাতা আর উপকূলীয় বঙ্গে।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন