kolkata rain storm

ওয়েবডেস্ক: প্রতীক্ষার অবসান। অবশেষে কলকাতার ওপর দিয়ে বয়ে গেল মরশুমের প্রথম কালবৈশাখী। সঙ্গে ভালো বৃষ্টি। কলকাতায় প্রবল ঝড় এক দিকে যেমন তাপমাত্রাকে অনেকটাই কমিয়ে দিল, তেমনই দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলায় নিয়ে এল দুর্যোগও।

রবিবার রাত পৌনে আটটা নাগাদ কালবৈশাখী ঝড় আছড়ে পড়ে কলকাতায়। তার আগে অবশ্য ঝাড়খণ্ডে উৎপত্তি হয়ে দুই মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বীরভূম, দুই বর্ধমানে তাণ্ডব চালানো হয়ে গিয়েছে তার। প্রায় মিনিট পনেরো প্রবল ঝড়ের পর শুরু হয় জোর বৃষ্টি। রাত দশটাতেও সেই বৃষ্টি চলছে। আগামী কয়েক ঘণ্টা সেই বৃষ্টি চলবে বলেই জানানো হয়েছে।

কলকাতায় এ দিন ঝড়ের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৮৫ কিলোমিটার। কিছু কিছু জায়গায় একশো ছুঁয়েছে বলে মত কয়েক জন আবহাওয়া বিশেষজ্ঞের। তবে কলকাতায় ঝড়ের গতিবেগ একশো ছোঁয়া নিয়ে সংশয় থাকলেও, জেলাগুলিতে যে এই গতিবেগের ঝড় হয়েছে সেটা নিশ্চিত। ঝড়ের তাণ্ডবে বিভিন্ন জায়গায় গাছ পড়ে গিয়েছে। ব্যাহত হয়েছে যান চলাচল।

কী কারণে এ দিন ঝড় বয়ে গেল কলকাতায়?

বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কার কথায়, “শনিবার নেপালের অন্নপূর্ণা পর্বত অঞ্চলে একটি মেঘ তৈরি হয়েছিল। সেই মেঘকে মধ্যপ্রদেশের ওপরে অবস্থিত একটি ঘূর্ণাবর্ত টেনে নিয়ে আসে। অন্য দিকে আরব সাগর থেকে জলীয় বাষ্প আমদানি করে এই ঘূর্ণাবর্তটি। এর ফলে এই মেঘ যখন ঝাড়খণ্ডের দিকে এগোচ্ছিল, তখন আরও একটা ঘূর্ণাবর্তের প্রভাব পড়ে তার ওপরে। এর ফলেই তৈরি হয় বজ্রগর্ভ মেঘ। যা দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলা হয়ে এগিয়ে আসে কলকাতার দিকে।”

এই ঝড়বৃষ্টির প্রভাব সোমবারও থাকবে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু। সোমবার বিকেলের পরেও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় ঝড় বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ঝড়ের সম্ভাবনা রয়েছে কলকাতাতেও।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here