অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

কলকাতা: তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া স্বতঃপ্রণোদিত মামলা খারিজ করে দিল কলকাতা হাইকোর্ট।

সোমবার সকালে বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্যের এজলাসে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা গ্রহণের আরজি জানান দুই আইনজীবী। কিন্তু দুপুরে ওই মামলার আরজি খারিজ করে দেন বিচারপতি। জরুরি ভিত্তিতে এই মামলার শুনানির কোনো প্রয়োজনীয়তা নেই বলেই মত তাঁর।

এ দিন দুপুরে হলদিয়ার শ্রমিক সমাবেশে অভিষেকের ওই বক্তব্যের পেন ড্রাইভ আদালতে জমা দেন মামলাকারী সুস্মিতা সাহা দত্ত। বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্য তা শোনেন। এর পর বিচারপতি মামলাকারীর উদ্দেশে পালটা প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন। তিনি বলেন, “বিচারপতিদের এক শতাংশ বলতে কী বোঝানো হয়েছে? একজন সাংসদ বললেন মানেই তা ধরে নিতে হবে, তেমন নয়। কাকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, তা বেশ অস্পষ্ট। আমার তো মনে হয় এড়িয়ে যাওয়াই উচিত।”

পাশাপাশি, বিচারপতির আরও পর্যবেক্ষণ, “কোনো ব্যক্তি কিছু বললেই মানহানি হয় না। প্রতিদিন কেউ না কেউ, কিছু না কিছু বলছেন। তা বিচারব্যবস্থাকে কলুষিত করতে পারে না। বিচারব্যবস্থার মান এতটা ঠুনকো নয়। জনপ্রতিনিধিদের এই ধরনের মন্তব্য থেকে বিরত থাকা উচিত। তবে এখনই স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু করার কোনো প্রয়োজনীয়তা নেই।”

উল্লেখ্য, গত শনিবার হলদিয়ায় শ্রমিক সমাবেশের মঞ্চে দাঁড়িয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বিচারব্যবস্থার দিকে আঙুল তোলেন। তিনি বলেন, “আমার বলতে লজ্জা লাগে বিচারব্যবস্থায় ১-২ জন এমন আছেন, যাঁরা সম্পূর্ণ যোগসাজশে তল্পিবাহক হিসাবে কাজ করছেন। তারা ১ শতাংশ হবে। কিছু হলেই সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে। খুনের মামলায় স্থগিতাদেশ দেওয়া হচ্ছে। শুনেছেন কোনো দিন?”

আরও পড়তে পারেন:

পাঞ্জাবে গায়ক-নেতা খুনের ঘটনায় উত্তরাখণ্ড থেকে ধৃত এক, পরিকল্পনা হয় তিহাড়ে

দক্ষিণবঙ্গে প্রাক বর্ষার পরিস্থিতি, ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা প্রায় রোজই

বিশেষ পরিবর্তন নেই, একই জায়গায় ঘোরাঘুরি করছে করোনা সংক্রমণ

অনীতের দলের সঙ্গে জোটের সম্ভাবনা জিইয়ে রেখে পাহাড়ে দশ আসনে প্রার্থী দিল তৃণমূল

অনশনের পঞ্চম দিনেই গুরুতর অসুস্থ বিমল গুরুং, ভরতি করানো হল হাসপাতালে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন