কলকাতায় মেট্রো ভ্রমণে দু’টি বিপরীতধর্মী বৈশিষ্ট্য রয়েছে। একদিকে যেমন সময় কম লাগে তেমনই অন্যদিকে পাতাল-যাত্রা অনেকের কাছে একঘেয়েমিরও বটে। সেই একঘেয়েমি কাটাতে এবার থেকে মেট্রোতে বাজবে চলেছে বিশেষ মিউজিক।

মেট্রো রেল সুত্রে জানানো হয়েছে, যাত্রীদের আনন্দ দিতে শুধু এই বিশেষ মিউজিকই নয়, পুজো-উপহার হিসেবে থাকবে আরও একটি বিশেষ ব্যবস্থা। পুজো শুরু হওয়ার আগে থেকে শেষ হওয়া পর্যন্ত ট্রেনে বাজবে ঢাকের বাজনা, সঙ্গে থাকবে মহালয়ের ভোরে যে ‘মহিষাসুরমর্দিনী’ শুনে বাঙালির ঘুম ভাঙে তার সুরও। এই ব্যাপারে মেট্রো রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক ইন্দ্রাণী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “যাত্রীদের স্বাচ্ছন্দ্য দিতেই এই পরিকল্পনা করা হচ্ছে। পুজোর আগেই এটা শুরু হবে। ইতিমধ্যেই এসি মেট্রো রেকে এই মিউজিকের ট্রায়াল বাজানো হয়েছে”।  

সোমবার তিনি আরও বলেন, যাত্রীদের সুবিধার জন্য মেট্রোয় নতুন বোর্ডও তৈরি করা হয়েছে। পুজোর সময় নাশকতা এড়াতে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে সে ব্যাপারেও বলেন ইন্দ্রাণীদেবী। পুজোতে যাত্রীদের নিরাপত্তা বাড়াতে বিভিন্ন স্টেশনে নতুন স্ক্যানার বসানো হচ্ছে। এমনকি স্টেশনের মধ্যে যে স্ক্যানারগুলি খারাপ হয়ে পড়ে আছে সেগুলিও মেরামত করা হচ্ছে। রেল পুলিশের সঙ্গে এ বার প্রতি স্টেশনে কলকাতা পুলিশের বাহিনীও মোতায়েন থাকবে। এর জন্য খুব শীঘ্রই কলকাতা পুলিশের সঙ্গে বৈঠক করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

মেট্রো সূত্রে খবর, প্রতিবারের মতো এবার পুজোতেও সপ্তমী থেকে দশমী পর্যন্ত সারা রাতই মেট্রো চলবে। পুজোর দিন কয়েক কলকাতার পার্শ্ববর্তী জেলা থেকে বহু মানুষ ঠাকুর দেখতে আসেন। মানুষের সেই ভিড় সামাল দিতে কাগজের একটি বিশেষ টোকেন চালু করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। পুজোর আগেই যতীনদাস পার্ক স্টেশনে প্রবীণ নাগরিকদের জন্য আলাদা বসার জায়গা বানানো হবে। এই স্টেশন ছাড়াও শহরের একাধিক স্টেশনে পুজোর আগেই এই বসার জায়গা তৈরি করা হবে বলে জানা গিয়েছে। এছাড়া যে সব স্টেশনে পানীয় জলের ব্যবস্থা নেই, সেই স্টেশনগুলিতেও পুজোর আগে পানীয় জলের ব্যবস্থা করা হবে। এই কাজের জন্য মেট্রোকর্তারা ইতিমধ্যেই বিভিন্ন স্টেশন পরির্দশন করেছেন। 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here