নারকেলডাঙায় আড়াই বছরের শিশুকে ধর্ষণ করে গা-ঢাকা দেওয়ার চেষ্টা, গ্রেফতার ২ যুবক

0

কলকাতা: এ বার শহরের মধ্যেই আড়াই বছরের এক নাবালিকাকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠল রাজু রায় নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে৷ ঘটনায় অভিযুক্ত যুবক প্রথমে পলাতক হলেও পরে তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ এই ঘটনায় মুন্না রায় নামে তার আরও এক পরিচিত যুক্ত আছে বলে সন্দেহ ছিল পুলিশের৷ তাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। মূল অভিযুক্তর বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। শনিবার তাকে শিয়ালদহ হাসপাতালে পেশ করা হবে।

শিশুটিকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছে এনআরএস হাসপাতালে৷ তার শারীরিক অবস্থা ভালো নয় বলেই হাসপাতাল সূত্রে খবর৷ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে নারকেলডাঙা থানার পুলিশ৷ অভিযুক্তদের সন্ধানে তল্লাশি চালানো হচ্ছে৷ ঘটনায় অভিযুক্তের বাড়ি ভাঙচুর করেছে উত্তেজিত জনতা৷

শুক্রবার দুপুরে নারকেলডাঙা থানা এলাকার ওমদা রাজা লেনে বাড়ির সামনের রাস্তায় একাই খেলা করছিল শিশুটি৷ তাকে একা দেখতে পেয়ে জোর করে তুলে নিয়ে যায় রাজু রায় নামে অভিযুক্ত যুবক৷ মুন্না রায় নামে একজনের বাড়িতে নিয়ে গিয়ে তার উপর যৌন হেনস্থা করা হয় বলে অভিযোগ৷ শিশুটিকে দেখতে না পেয়ে তার মা খোঁজ শুরু করে৷

house of the accused ransacked
অভিযুক্তের বাড়ি ভাঙচুর।

প্রতিবেশী মুন্না রায়ের বাড়ি থেকে শিশুটির কান্নার আওয়াজ পেয়ে সেখানে দৌড়ে যায় তার মা৷ দেখে বিছানার উপর উলঙ্গ অবস্থায় পড়ে রয়েছে সে৷ তার যৌনাঙ্গ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছে৷ সেই সময় বাড়ির মধ্যেই ছিল রাজু৷ তাকে ধরে মারধর শুরু করে শিশুটির মা৷ মারতে মারতে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়লে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত৷ আওয়াজ পেয়ে বাকি প্রতিবেশীরা দৌড়ে আসে৷ তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওযা হয়৷ ঘটনায় নারকেলডাঙা থানায় অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিতার পরিবার৷

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.