‘সরকার-সমর্থিত’ ইমেল স্নুপিংয়ের চেষ্টা, সতর্কতা বার্তা পেলেন কলকাতার অধ্যাপক!

0
Phishing
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: ভারতে সমাজকর্মী ও মানবাধিকার কর্মীদের নিশানা করে যখন ইজরায়েলি স্পাইওয়্যার পেগাসাসের হানা নিয়ে দেশ জুড়ে তোলপাড় চলছে, ঠিক সে সময়েই কলকাতার মলিকিউলার বায়োলজিস্ট পার্থসারথি রায় আরেকটি ‘আশ্চর্যজনক’ সমস্যায় পড়েছেন। তাঁর ইমেলে ‘আড়িপাতা’ নিয়ে তিনি একটি বিশেষ বার্তা পেয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন ক্যান্সার জীববিদ্যায় বিশেষজ্ঞ এবং কলকাতায় আইআইএসইআর বা ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চের সহযোগী অধ্যাপক পার্থসারথি।

তাঁর দাবি, নিজের ইয়াহু ইমেল অ্যাকাউন্টটিতে তিনি প্রযুক্তি সংস্থার কাছ থেকে একটি উদ্বেগজনক বার্তা পেয়েছিলেন। তাঁকে ওই বার্তায় জানানো হয়, “আমরা বিশ্বাস করি যে আপনার ইয়াহু অ্যাকাউন্টটি সরকার-সমর্থিত কৌশলীদের লক্ষ্য হতে পারে, যার অর্থ তাঁরা আপনার অ্যাকাউন্টে থাকা তথ্য অ্যাক্সেস করতে পারে”।

পার্থসারথি একজন সুপরিচিত নাগরিক অধিকাররক্ষা কর্মী এবং বামপন্থী ম্যাগাজিন ‘সংহতি’র অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। ২০১২ সালে ১০ দিনের জন্য জেল খাটতে হয় তাঁকে। সে সময় তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল সরকারের কলকাতায় বস্তিবাসী উচ্ছেদ করার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সরব হয়েছিলেন। তাঁর গ্রেফতারি নিয়ে বিশ্বব্যাপী শিক্ষাবিদ এবং মানবাধিকার কর্মীরা প্রতিবাদ মুখর হয়েছিলেন। এ ছাড়াও তিনি কারাবন্দিদের সহায়তা দেওয়া থেকে শুরু করে আদিবাসী, দলিত এবং ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মতো প্রান্তিক শ্রেণীর মানুষের স্বার্থরক্ষার লড়াইয়ে একজন পরিচিত সৈনিক।

ইয়াহুর বার্তা অনুযায়ী, পার্থসারথির ব্যক্তিগত ইমেলটি নিশানা করা হতে পারে বলে জানা যায়। তিনি জানান, গত ৫ নভেম্বর নিজের ব্যক্তিগত ইমেল অ্যাকাউন্ট এবং তাঁর অফিসিয়াল আইআইএসইআর ইমেলে (তাঁর ব্যক্তিগত আইডির পুনরুদ্ধার অ্যাকাউন্ট হিসাবে ব্যবহৃত) ওই বার্তাটি পেয়েছিলেন।

পার্থসারথি বলেন, “বার্তাটি খুব স্পষ্টভাবে বলেছিল যে আমাকে সরকার-সমর্থিত কৌশলীরা ডিজিটাল ভাবে টার্গেট করেছিল। আমি ইয়াহুর ওয়েবসাইট সন্ধান করে জানতে পেরেছি, ওয়েবসাইটগুলি যখন কারও অ্যাকাউন্টে অস্বাভাবিক কিছু সন্দেহ করে তখনই ব্যবহারকারীকে এই জাতীয় ইমেলগুলি পাঠানো হয়। আমি ইমেলটিতে উল্লিখিত বেশ কয়েকটি লিঙ্ক অনুসরণ করি এবং আমি নিশ্চিত যে এটি একটি নির্ভেজাল ইমেল ছিল”।

তবে এ ব্যাপারে একটি সংবাদ মাধ্যমের তরফে ইয়াহু-র সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে পার্থসারথির অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা হয়েছিল কি না, তেমন প্রশ্নের কোনো স্পষ্ট উত্তর পাওয়া যায়নি। যদিও প্রযুক্তি সংস্থা জানায়, “তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টে অননুমোদিত অ্যাক্সেস করার চেষ্টা ধরা পড়লেই তা প্রতিরোধ করার জন্য আমরা সচেষ্ট রয়েছি”। তবে এর অর্থ সব সময় এই নয় যে, অ্যাকাউন্টের তথ্য অ্যাক্সেস করা হয়েছে। কিন্তু প্রতিটি ক্ষেত্রেই ব্যবহারকারীকে সুরক্ষিত রাখার জন্য এ ধরনের বার্তা পাঠানো হয়ে থাকে।

ইয়াহু মুখপাত্র এ কথাও জানান, “কোনও অ্যাকাউন্টকে টার্গেট করা হয়েছে কি না, তা প্রকাশ করা চ্যালেঞ্জিং বিষয়। কারণ অবৈধ কৌশলীদের হানা প্রতিরোধ করার জন্য আমরা কাউকে রোডম্যাপ দিতে চাই না, তবে আমরা শুধুমাত্র একজন ব্যবহারকারীকে তখনই অবহিত করি যদি তাঁদের নিশানা করার কোনো আভাস পাওয়া যায়”। অর্থাৎ, এটি মূলত ব্যবহারকারীকে সম্ভাব্য ফিশিং আক্রমণ থেকে রক্ষা করার জন্য পাঠানো হয়ে থাকতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here