ওয়েবডেস্ক: বিধাননগর পুরসভার নতুন মেয়রের নাম নিয়ে জল্পনার অবসান ঘটল। জানা গিয়েছে, পুরসভার মেয়র সব্যসাচী দত্ত ইস্তফা দেওয়ার পর ওই পদে পুরসভার চেয়ারপার্সন কৃষ্ণা চক্রবর্তীকে বসানোর চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

লোকসভা ভোটের পর থেকেই বিধাননগর পুরসভার কাজকর্মে ব্যাঘাত সৃষ্টি হয়ে চলছিল। প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচীর বেশ কিছু বিতর্কিত কথাবার্তা এবং আচরণ রাজ্যের শাসক দলকে বিড়ম্বনায় ফেলেছে নিরবচ্ছিন্ন ভাবে। বিদ্যুৎভবনের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশে মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের উদ্দেশে কটাক্ষ ছুড়ে দেওয়ার পর দল অনাস্থা নিয়ে আসা মেয়রের বিরুদ্ধে। তবে সব্যসাচী ওই অনাস্থার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে গিয়েও মেয়র পদ থেকে ইস্তফা দেন। এর পরই শুরু হয় বিধাননগর পুরসভার নতুন মেয়র বাছাইয়ের কাজ।

দলের অন্দর মহলে অবশ্য মেয়রপদে বিধাননগরের ডেপুটি মেয়র তাপস চট্টোপাধ্যায়ের নাম নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়েছিল। তবে সিপিএম-ছাপ তাপসের অতীতকে ঘিরে রয়েছে। এক সময়ে সিপিএমের দাপুটে নেতা তাপস ওরফে জিম্বোর বিরুদ্ধে তৃণমূলই এলাকায় সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলেছিল। এহেন নেতাকে মেয়রপদে বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে সরে দাঁড়াতে পারেন বেশ কয়েকজন পুরনো তৃণমূলি কাউন্সিলার। স্বাভাবিক ভাবেই ঠান্ডাঘরে চলে যায় তাপসের নাম।

অন্য দিকে বিধাননগর পুরসভার চেয়ারপার্সন কৃষ্ণা চক্রবর্তীও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পছন্দের তালিকায় বরাবরই রয়েছেন। আবার সব্যসাচীকে নিয়ে তৈরি হওয়া ডামাডোলের সময় কৃষ্ণাদেবী বারবার মনে করিয়ে দেন,
“আমরা দলের সৈনিক। দল যা সিদ্ধান্ত নেবে, মেনে চলব। ১৯৮০ সাল থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আদর্শ মেনে রাজনীতি করছি”। 

দলীয় সূত্রে খবর, বিধাননগরের নতুন মেয়রের দায়িত্ব কৃষ্ণাদেবীর হাতে গেলেও ডেপুটি মেয়র অপরিবর্তিত থাকছে, অন্য দিকে পুরসভার চেয়ারপার্সন হচ্ছেন অনিতা মণ্ডল।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন