ওয়েবডেস্ক: রায়গঞ্জ-মুর্শিদাবাদ নিয়ে মীমাংসা হয়ে যাওয়ার পর এ বারের লোকসভা ভোটে বামফ্রন্ট-কংগ্রেস জোটের জট খুলল না বুধবারেও। এ দিন বামফ্রন্টের বৈঠকে পূর্বনির্ধারিত ভাবে পুরুলিয়া আসন নিয়ে ফরওয়ার্ড ব্লকের মান ভাঙানোর মাঝেই ফের চাঙ্গা হয়ে উঠল উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাট-কাঁটা।

জানা গিয়েছে, এ দিন বামফ্রন্টের বৈঠকে প্রথম থেকেই পুরুলিয়া না ছাড়ার পক্ষে সওয়াল করেন ফরওয়ার্ড ব্লক নেতৃত্ব। এর আগেও জোটের স্বার্থে এ বার ওই আসনটি কংগ্রেসকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য ফরওয়ার্ড ব্লক নেতৃত্বের কাছে আবেদন জানিয়ে ছিলেন ফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। কিন্তু এ দিনেও এ বিষয়ে তাঁদের রাজি করানো যায়নি বলে সূত্রের খবর।

অন্য দিকে প্রবল অনিচ্ছা সত্বেও এর আগের বৈঠকে বৃহত্তর স্বার্থে বসিরহাট আসন কংগ্রেসকে ছেড়ে দিতে রাজি হয়েছিল বামফ্রন্টের অন্যতম শরিক সিপিআই। এ দিন তারা আবার পুরনো দাবিতে ফিরে যায় বলে জানা গিয়েছে। সিপিআই নেতৃত্ব না কি এমনটাও দাবি করেছেন, খুব শীঘ্রই তাঁরা বসিরহাটে দলীয় প্রার্থী ঘোষণা করে দিতে পারেন। তাতে বাম-কংগ্রেস সমঝোতা হোক বা না হোক।

[ আরও পড়ুন: ত্রিপুরার ২টি লোকসভা আসনে প্রার্থী ঘোষণা বামফ্রন্টের, প্রচার শুরু ]

উল্লেখ্য, আসন নিয়ে দড়ি টানাটানিতে এমনিতেই কংগ্রেসের হাত থেকে রায়গঞ্জ-মুর্শিদাবাদ ধরে রাখতে সফল হয়েছে সিপিএম। কংগ্রেস নেতৃত্ব জানিয়ে দিয়েছেন, ওই দুই আসনে তাঁরা প্রার্থী দেবেন না। এর পরই ফের বেঁকে বসেন ফরওয়ার্ড ব্লক এবং সিপিআই নেতৃত্ব। অতীতের লোকসভা ভোটের পরিসংখ্যান এবং সাংগঠনিক শক্তির নিরিখে তাঁরাও বসিরহাট এবং পুরুলিয়া নিয়ে সুর চড়াতে শুরু করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here