ওয়েবডেস্ক: রাজধানীর মতো এসি ট্রেনগুলি চালু হওয়ার পর আগামী সোমবার থেকে দেশ জুড়ে চলতে শুরু করবে ২৩০টি মেল এবং এক্সপ্রেস ট্রেন। এ রাজ্যের হাওড়া, শিয়ালদহ, নিউ জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার স্টেশনে চলাচল করবে বেশ কয়েকটি ট্রেন।

দক্ষিণ-পূর্ব এবং পূর্ব রেলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দু’টি বিভাগে যথাক্রমে নয় এবং আট জোড়া ট্রেন চলাচল করবে। এর মধ্যে থাকছে পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে যুক্ত দুরন্ত এক্সপ্রেস এবং জনশতাব্দী এক্সপ্রেসগুলি।

রাজ্যের সঙ্গে সংযুক্ত যে ট্রেনগুলি চালু হচ্ছে-

১. হাওড়া – ভুবনেশ্বর জনশতাব্দী এক্সপ্রেস – দক্ষিণ পূর্ব রেল – সপ্তাহে প্রতিদিন

২. হাওড়া – পটনা জনশতাব্দী এক্সপ্রেস – পূর্ব মধ্য রেল – সপ্তাহে ছ’দিন

৩. হাওড়া – বারবিল জনশতাব্দী এক্সপ্রেস – দক্ষিণ পূর্ব রেল – সপ্তাহে প্রতিদিন

৪. হাওড়া – যশবন্তপুর দুরন্ত এক্সপ্রেস – দক্ষিণ পূর্ব রেল – সপ্তাহে পাঁচ দিন

৫. হাওড়া – সেকেন্দ্রাবাদ ফলকনুমা এক্সপ্রেস – দক্ষিণ মধ্য রেল – সপ্তাহে প্রতিদিন

৬. হাওড়া – মুম্বই মেল – দক্ষিণ পূর্ব রেল – সপ্তাহে প্রতিদিন

৭. হাওড়া – নিউ দিল্লি পূর্বা এক্সপ্রেস – পূর্ব রেল – সপ্তাহে প্রতিদিন

৮. হাওড়া – যোধপুর এক্সপ্রেস – পূর্ব রেল – সপ্তাহে প্রতিদিন

৯. শিয়ালদহ -পুরী দুরন্ত এক্সপ্রেস – পূর্ব রেল – সপ্তাহে তিন দিন

১০. শিয়ালদহ – নিউ আলিপুরদুয়ার পদাতিক এক্সপ্রেস – পূর্ব রেল – সপ্তাহে প্রতিদিন

১১. শালিমার – পটনা দুরন্ত এক্সপ্রেস – দক্ষিণ পূর্ব রেল – সপ্তাহে তিন দিন

১৩. অমৃতসর – কলকাতা এক্সপ্রেস – পূর্ব রেল – সপ্তাহে দু’দিন

১৪. অমদাবাদ – হাওড়া এক্সপ্রেস – দক্ষিণ পূর্ব রেল – সপ্তাহে প্রতিদিন

যাত্রীকে যে নির্দেশ মেনে চলতে হবে-

১. শুধুমাত্র সংরক্ষিত আসনের যাত্রীদেরই স্টেশনে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে।

২. মাঝপথ থেকে সংরক্ষণ ছাড়া কোনো যাত্রীকে ট্রেনে উঠতে দেওয়া হবে না, এমনকী আসন ফাঁকা থাকলেও।

৩. শুধুমাত্র আরএসি টিকিটের যাত্রীদের ফাঁকা আসন বরাদ্দ করা হবে।

৪. যাত্রীদের বালিশ-বিছানা নিয়ে উঠতে হবে। রেল কোনো সরঞ্জাম দেবে না।

৫. পানীয় জল এবং চা-কফি ছড়া ট্রেনে অন্য কোনো খাবার পাওয়া যাবে। অর্থাৎ, প্রয়োজনীয় খাবার যাত্রীদের বহন করতে হবে।

৬. নিয়মানুযায়ী ট্রেনে ওঠার আগে যাত্রীদের স্বাস্থ্যপরীক্ষা করা হবে। শরীরের তাপমাত্রা বেশি হলে সফরের অনুমতি দেওয়া হবে না।

৭. যাত্রীর মোবাইলে আরোগ্য সেতু অ্যাপ থাকা বাধ্যতামূলক।

৮. মাস্ক পরতে হবে। স্যানিটাইজার রাখতে হবে।

৯. ট্রেন ছাড়ার দেড় ঘণ্টা আগে যাত্রীকে স্টেশনে পৌঁছাতে হবে।

১০. যাত্রীর পরিবারের সদস্য অথবা বন্ধুবান্ধব, যাঁরা সফর করছেন না, তাঁদের স্টেশনে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন