বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রের চণ্ডীপাঠে ঘুম ভাঙল বাঙালির, কিন্তু দেবীপক্ষ আরও এক মাস পর

0
Mahalaya 2020

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ‘আশ্বিনের শারদ প্রাতে…’

না, এ বার আর আশ্বিনের শারদ প্রাতে হল কই! পুজো তো এখনও ঢের দেরি। মহালয়ার দিনেও পুজোর অনুভূতিটাই এল না এ বার। আর তার কারণ, আশ্বিনটা যে এ বার মল মাসে পরিণত।

Loading videos...

প্রতিবারের মতো এ বারও বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রের কণ্ঠে চণ্ডীপাঠ শুনে ঘুম ভাঙল আমবাঙালির। আর সেই চণ্ডীপাঠ শুনেই অনেকে বিভিন্ন নদীর ঘাটে চলে গিয়েছেন পিতৃপুরুষদের স্মৃতির উদ্দেশে তর্পণের জন্য।

মহালয়ার এক সপ্তাহের মাথায় পুজো, এটাই চিরকালীন নিয়ম। তর্পণের অমাবস্যা শেষে হয়ে শুক্ল প্রতিপদ শুরু হওয়া মানেই পিতৃপক্ষ শেষ করে দেবীপক্ষের সূচনা। কিন্তু এ বার আর ষষ্ঠীতে বোধনের ঢাকে কাঠি পড়তে ছ’দিন নয়, পাক্কা ছত্রিশ দিনের অপেক্ষা।

১৭ সেপ্টেম্বর বিকেলে অমাবস্যা শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পিতৃপক্ষ শেষ। কিন্তু দেবীপক্ষের সূচনা হতে সেই ১৭ অক্টোবর। 

মাঝে আশ্বিন মাসটি এ বার পঞ্জিকা মতে ‘মল মাস’ বলে চিহ্নিত। মল মাস মানে যে মাসে দুটি অমাবস্যা তিথি থাকে। এ মাসে কোনো শুভকাজ বা উৎসব-পার্বণ নিষিদ্ধ। তারই জেরে আশ্বিনের শারদপ্রাতে নয়, দুর্গাপুজো এ বার কার্তিকে। করোনাকে উপেক্ষা করেও হিমের ছোঁয়া গায়ে মেখে বাঙালি যে দুর্গাপুজোয় মেতে উঠবে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

মহালয়া উপলক্ষ্যে অনলাইনে ‘বাগুইআটি নৃত্যাঙ্গন’-এর নিবেদন ‘দুর্গা দুর্গতিনাশিনী’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.