জলপাইগুড়ি: দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের সময় জলপাইগুড়ির মালবাজারে বিপর্যয়ে মৃত ৮। বুধবার, দশমীর সন্ধ্যায় মাল নদীতে আচমকা হড়পা বানে ভেসে যান বহু মানুষ। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা। বিপর্যয়ে মৃতদের পরিবার ও আহতদের জন্য আর্থিক সাহায্যের কথা ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এই ঘটনার পর শোকপ্রকাশ করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। মৃতের নিকট আত্মীয়কে ২ লক্ষ এবং আহতদের ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করছেন তিনি। একই পরিমাণ আর্থিক সাহায্য ঘোষণা করেছে প্রধানমন্ত্রীর দফতরও।

কী বললেন মুখ্যমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার টুইটারে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘‘দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের সময় জলপাইগুড়িতে মাল নদীতে হড়পা বানে বিপর্যয় হয়েছে। আট জনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই। মালবাজার সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ১৩ জনের চিকিৎসা চলছে। তাঁদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।’’

মুখ্যমন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে এনডিআরএফ, এসডিআরএফ এখনও খোঁজ এবং তল্লাশি কার্য চালিয়ে যাচ্ছেন। ৭০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে।’ পাশাপাশি এই ঘটনার পর কোনও প্রয়োজনে, দুটি জরুরি ফোন নাম্বারও শেয়ার করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। হেল্পলাইন নাম্বার দুটি হল ০৩৫৬১ ২৩০ ৭৮০ এবং ৯০৭৩৯ ৩৬৮১৫ ।

ক্ষুব্ধ প্রধানমন্ত্রী

এই দুর্ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘‘জলপাইগুড়িতে প্রতিমা নিরঞ্জনের সময় যে দুর্ঘটনা ঘটেছে তাতে আমি ক্ষুব্ধ। এই দুর্ঘটনায় যাঁরা মারা গিয়েছেন, তাঁদের পরিবারের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করছি।’’

প্রশাসনের তরফে মৃত ব্যক্তিদের যে তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, তাতে রয়েছে তপন অধিকারী (৭২), ঊর্মি সাহা (১৩), রুমুর সাহা (৪২), আনস পণ্ডিত (৮), বিভা দেবী (২৮), শুভাশিস রাহা (৬৩), শোভনদ্বীপ অধিকারী (২০) এবং সুস্মিতা পোদ্দার (২২)। ১৩ জনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। বর্তমানে তাঁরা মালবাজার হাসপাতালে ভর্তি।

খবর অনলাইন-এ আরও পড়ুন:

বিসর্জনের সময় বিপর্যয়, মাল নদীর হড়পা বানে মৃত ৮ জনের নাম প্রকাশ করল প্রশাসন

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন