Mamata Banerjee
প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

ঠাকুরনগর: মতুয়া মহাসঙ্ঘের বড়মা বীণাপাণি ঠাকুরের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে একগুচ্ছ নতুন প্রকল্পের ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবারের ওই অনুষ্ঠানে তিনি জানান, মতুয়া মহাসঙ্ঘের প্রতিষ্ঠাতা হরিচাঁদ-গুরুচাঁদ ঠাকুরের নামে বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করা হবে।

মমতা এ দিন বলেন, তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পর রাজ্যে ১০ লক্ষ ৫৭ হাজার জাতি শংসাপত্র দেওয়া হয়েছে। গড়ে উঠেছে মতুয়া সঙ্ঘ বিকাশ পর্ষদ এবংনম‌ঃশূদ্র বিকাশ পর্ষদ নামের দু’টি কেন্দ্র। মহারাষ্ট্র সরকার যেখানে মতুয়াদের সমস্ত সুযোগ-সুবিধা কেড়ে নিচ্ছে, সেখানে পশ্চিমবঙ্গ সরকার সব রকম ভাবে মতুয়া সম্প্রদায়ের পাশ আছে।

ঠাকুরনগরের উন্নয়ন মূলক কাজের দীর্ঘ তালিকা পেশ করেন মমতা। একই সঙ্গে তিনি জানান, গোটা এলাকাকে সরকারি উদ্যোগে আলো দিয়ে সাজানো হবে। পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে গড়ে তোলা হবে এই এলাকাকে।

এ দিন হরিচাঁদ-গুরুচাঁদ ঠাকুরের নামে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, গত বুধবারই চাঁদপুরে এই বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার জন্য জমি দেখা হয়েছে। মোট ৮.৮ একর জমি পাওয়া গিয়েছে। ইতিমধ্যেই হরিচাঁদ-গুরুচাঁদ ঠাকুরের নামে কলেজ গড়ে উঠেছে রাজ্যে। এ বার হবে বিশ্ববিদ্যালয়।

উল্লেখ্য, ঠাকুরনগরের ঠাকুরবাড়ি এখন রাজনৈতিক দ্বন্দ্বে দীর্ণ। সেই বাড়িতেই থাকেন তৃণমূল সাংসদ মমতাবালা ঠাকুর আবার বিজেপি নেতা মঞ্জুল এবং সুব্রত ঠাকুর। এই সুব্রত ২০১৪ সালে বিজেপির প্রতীকে মমতাবালার বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হন। ফলে তৃণমূল এবং বিজেপির উভয়ের নজরেই এখন ঠাকুরবাড়ি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here