Connect with us

রাজ্য

মুখ্যমন্ত্রীকে পাল্টা ‘জবাব’ এসএসকেএমের জুনিয়র ডাক্তারদের

Mamata Banerjee

ওয়েবডেস্ক: “কাজে যোগ না দিলে কঠোর পদক্ষেপ” নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর পরেও ক্ষোভে ফুঁসে উঠছেন এসএসকেএম হাসপাতালের জুনিয়র ডাক্তাররা।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টা নাগাদ এসএসকেএম হাসপাতালে গিয়ে মমতা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, “সব হাসপাতালে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। নির্বাচনের সময় পুলিশ তোলা হয়। কার নির্দেশে তোলা হল জানি না। তবে ফের সব হাসপাতালে পুলিশ মোতায়েন হয়েছে। আমি আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিলাম। তাঁরা আমার সঙ্গে কথা বলেননি। চার দিন সহ্য করেছি। আর নয়। আজই জুনিয়র ডাক্তারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পুলিশকে বলেছি, কঠোর ব্যবস্থা নিতে চার ঘণ্টা সময় দিলাম। তার মধ্যে কাজে যোগ দিতে হবে। কাজে যোগ না দিলে হস্টেল ছাড়তে হবে”।

[ মুখ্যমন্ত্রীর এসএসকেএম পরিদর্শনের পর রাজ্যপালের দ্বারস্থ জুনিয়র ডাক্তাররা ]

গত সোমবার রাতে এনআরএস হাসপাতালে রোগীর মৃত্যু এবং তার জেরে জুনিয়র ডাক্তারদের নিগ্রহের প্রতিবাদে কর্মবিরতির ডাক দিয়েছিল চিকিৎসক সংগঠন। যার জেরে বিপর্যস্ত রাজ্যের চিকিৎসা পরিষেবা। হাসপাতালের কাজ স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে আসতেই এ দিন এসএসকেএমে যান মুখ্যমন্ত্রী। তবে সেখানে গিয়ে এনআরএসের ডাক্তারদের “বহিরাগত” বলেও তোপ দাগেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই বক্তব্যও ক্ষোভ বাড়িয়েছে আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তারদের।

সেখানে গিয়ে হাতের মাইকে তিনি জুনিয়র ডাক্তারদের উদ্দেশে একাধিক হুঁশিয়ারি দেন মমতা। এমনকী জুনিয়র ডাক্তারদের সঙ্গে আলোচনায় বসার কথাও জানান। কিন্তু সে সবে তোয়াক্কা করতে দেখা যায়নি আন্দোলনকারীদের।

[ সাগর দত্ত হাসপাতালের চিকিৎসকদের গণ ইস্তফা ]

আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তাররা মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে স্লোগান দিতে থাকেন। রোগীর পরিজনদের হাতে নিগৃহীত নিজেদের সহকর্মীদের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে তাঁরা স্লোগান তোলেন, “উই ওয়ান্ট জাস্টিস”। এমনকী মমতা যখন রোগীদের সঙ্গে কথা বলছেন, তখন জুনিয়র ডাক্তাররা তাঁকে ঘিরে স্লোগান-বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন।

আন্দোলনকারীদের তরফে জানানো হয়, “মুখ্যমন্ত্রী হুমকি দিয়েছেন। আমরা তা মানি না। আমরা জিবি বৈঠকে বসছি। তার পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত স্থির করব। তবে আন্দোলন চলবে”।

অন্য দিকে জুনিয়র ডাক্তারদের রাজনৈতিক-যোগের মন্তব্যে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে ক্ষমপ্রার্থনার দাবি তুলেছেন এনআরএসের আন্দোলনকারীরা।

আন্দোলনকারীদের বক্তব্য, ঘটনার সূত্রপাত এনআরএসে। সেখানেই গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি দুই জুনিয়র ডাক্তার। মুখ্যমন্ত্রী তো সেখানে যেতে পারতেন! ফলে তাঁদের হুঁশিয়ারি দিয়ে রোগীর পরিবারের পাশে দাঁড়ালেও এ দিন জুনিয়র ডাক্তারদের মনে আরও বেশি ক্ষোভের সঞ্চার করল তাঁর এই ধরনের হুঁশিয়ারি, এমনটাই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

তবে সর্বশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, মুখ্যমন্ত্রী এসএসকেএম থেকে বেরিয়ে আসতেই স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলারদের নেতৃত্বে বিশাল একটি মিছিল পৌঁছায় সেখানে। তারা অবিলম্বে পরিষেবা চালুর স্লোগান তুলতে শুরু করে। এর পরই জরুরি বিভাগ চালু হয়।

রাজ্য

কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে সন্ধ্যার মধ্যে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা

thunderstorm

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বৃষ্টির অভাবে গত কয়েক দিনে সর্বোচ্চ পারদ চড়ছিল হুহু করে। সেই অসহনীয় পরিস্থিতি থেকে কিছুটা স্বস্তি শুক্রবার সন্ধ্যার মধ্যেই মিলতে পারে কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে।

দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জায়গায় শুক্রবার সন্ধ্যার মধ্যে ঝড়বৃষ্টি হতে পারে। বিক্ষিপ্ত ভাবে কোথাও কোথাও ভারী বৃষ্টিরও সম্ভাবনা রয়েছে। কলকাতায় মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহের শনিবার আর রবিবার কলকাতায় প্রবল বর্ষণ হয়। সোমবার কলকাতায় বৃষ্টি না হলেও দক্ষিণবঙ্গের বাকি জায়গায় বৃষ্টি হয়। কিন্তু তার পর থেকেই বৃষ্টি কার্যত উধাও। বৃষ্টি কমে যাওয়ার ফলে ক্রমশ বাড়তে শুরু করে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

বৃহস্পতিবার কলকাতায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা পৌঁছে যায় ৩৯ ডিগ্রির ঘরে। জুলাইয়ে এই রকম পারদবৃদ্ধি শেষ কবে হয়েছিল কার্যত মনেই পড়ে না। তবে ওই দিন সন্ধ্যাতেও দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে টুকটাক বৃষ্টি হয়, যদিও কলকাতার ভাগ্যে কিছুই জোটেনি।

অবশেষে শুক্রবার থেকে দক্ষিণবঙ্গে ফের সক্রিয় হওয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছে বর্ষা। তারই ফলস্বরূপ এ দিন সন্ধ্যায় বৃষ্টির সম্ভাবনা। ইতিমধ্যেই ঝাড়খণ্ড আর বিহার বজ্রগর্ভ মেঘ তৈরি হয়ে গিয়েছে। ধীরে ধীরে তা বাংলার দিকেই এগিয়ে আসছে।

শুক্রবার বিকেল থেকে রাতের মধ্যে দক্ষিণবঙ্গের সব জেলা আর উত্তরবঙ্গের মালদা আর দক্ষিণ দিনাজপুরে ঝড়বৃষ্টি হতে পারে।

Continue Reading

রাজ্য

পশ্চিমবঙ্গে ১৫ রুটে বেসরকারি ট্রেন, ভাড়া বাড়বে কি?

সাধারণ ট্রেনের তুলনায় বেসরকারি ট্রেনের ভাড়ার ফারাক হবে বিপুল। কোনো কোনো ক্ষেত্রে যা সাধারণ যাত্রীদের নাগালের বাইরেও চলে যেতে পারে।

ওয়েবডেস্ক: আগামী ২০২৩ সালের এপ্রিল মাস থেকে সারা দেশের ১০৯টি রুটে মোট ১৫১টি বেসরকারি ট্রেন চালানোর পরিকল্পনা নিয়েছে রেলমন্ত্রক। এর মধ্যে শুধুমাত্র হাওড়া ক্লাস্টার থেকেই ১০টি-সহ পশ্চিমবঙ্গের ১৫টি রুটে চলবে এ ধরনের বেসরকারি ট্রেন। এই ট্রেনগুলির পরিচালনভার বেসরকারি হাতে গেলে ভাড়া বাড়বে কি না, এখন সেই প্রশ্নই উঠে আসছে।

গত বুধবার‌ রেলমন্ত্রক ১৫১টি ট্রেন বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়ার প্রারম্ভিক পর্বে ‘যোগ্যতা যাচাইয়ের অনুরোধ’ বা রিকোয়েস্ট ফর কোয়ালিফিকেশন (RFQ) জমা দেওয়ার কথাও জানায়। বৃহস্পতিবার রেলবোর্ডের চেয়ারম্যান বিনোদকুমার যাদব এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য পেশ করেন।

বেসরকারি ট্রেন চালানোর জন্য মূলত লাভজনক রুটগুলি বেছে নেওয়া হচ্ছে, চেয়ারম্যানের ঘোষণা থেকে তা স্পষ্ট। তবে নতুন বেসরকারি ট্রেন চালু হলেও পুরনো ট্রেনগুলি আগের মতোই চলবে বলে জানা যায়। একই সঙ্গে রেলের বক্তব্যে ইঙ্গিত মিলেছে, সাধারণ ট্রেনের তুলনায় বেসরকারি ট্রেনের ভাড়ার ফারাক হবে বিপুল। কোনো কোনো ক্ষেত্রে যা সাধারণ যাত্রীদের নাগালের বাইরেও চলে যেতে পারে।

এক নজরে ১৫টি রুট

১. হাওড়া-ভাগলপুর

২. শিয়ালদহ-গুয়াহাটি

৩. হাওড়া-বারাণসী ভায়া পটনা

৪. হাওড়া-আনন্দবিহার

৫. নিউ বঙ্গাইগাঁও-হাওড়া

৬. হাওড়া-রাঁচি

৭. পুরী-হাওড়া

৮. হাওড়া-চেন্নাই

৯. হাওড়া-পুনে

১০. রাঁচি ভায়া পুরুলিয়া-হাওড়া

১১. মুম্বই-হাওড়া

১২. আসানসোল-পুরী

১৩. আসানসোল-সুরত

১৪. হাওড়া-বেঙ্গালুরু

১৫. হাওড়া-সেকেন্দরাবাদ

রেল জানিয়েছে, বেসরকারি ট্রেনের ভাড়া হবে ‘ফ্লেক্সিবল’। অর্থাৎ, যাত্রী চাহিদা বাড়া-কমার সঙ্গেই ভাড়া‌র তারতম্য ঘটবে। তবে এর জন্য কোপ পড়বে না পুরনো ট্রেনগুলির সময়তালিকায়। রেল জানায়, ওই ট্রেনগুলি আগের মতোই চলবে। বেসরকারি উদ্যোগে আরও পাঁচ শতাংশ ট্রেনকে অন্তর্ভুক্ত করা হলে যাত্রী পরিকষেবা আরও উন্নত হবে।

বেসরকারি হাতে ট্রেন পরিচালনার দায়িত্ব তুলে দেওয়ার কেন্দ্রীয় এই পরিকল্পনাটি গত ২০১৯ সালেই গৃহীত হয়েছিল। সেই পরিকল্পনাই এখন দ্রুত বাস্তবায়িত করতে চাইছে কেন্দ্র। যা নিয়ে বিরোধী রাজনৈতিক দল থেকে শুরু করে রেলের কর্মী সংগঠনগুলিও সরব হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী অভিযোগ করেছেন, “ভারতীয় রেল দেশের গরিব মানুষের একমাত্র জীবনরেখা। কেন্দ্রীয় সরকার এখন সেটাকে ছিনিয়ে নিতে চাইছে। দেশের জনতা এর কড়া জবাব দেবেন, এ কথা মনে রাখবেন”।

১২টি ক্লাস্টার

১. বেঙ্গালুরু

২.চণ্ডীগড়

৩.চেন্নাই

৪. দিল্লি-১

৫. দিল্লি- ২

৬. হাওড়া

৭. জয়পুর

৮. মুম্বই-১

৯. মুম্বই -২

১০.পটনা

১১. প্রয়াগরাজ

১২. সেকেন্দরাবাদ ক্লাস্টার।

বেসরকারি ট্রেন চালাতে সারা দেশকে এই ১২টি ক্লাস্টারে ভাগ করেছে রেল।

পড়তে পারেন: ট্রেন চালানোর জন্য কেন বেসরকারি বিনিয়োগের মুখাপেক্ষী নরেন্দ্র মোদী?

Continue Reading

দার্জিলিং

সিপিএম নেতা অশোক ভট্টাচার্যের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভভ হল

ashok bhattacharya

শিলিগুড়ি: অবশেষে নেগেটিভ এল সিপিএম নেতা অশোক ভট্টাচার্যের (Ashok Bhattacharjee) করোনা (Coronavirus) রিপোর্ট।  বৃহস্পতিবার রাতে এই খবর দিয়েছেন সিপিএমের জেলা সম্পাদক জীবেশ সরকার।

জীবেশবাবু জানিয়েছেন, “অশোকবাবুর রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। তিনি সম্ভবত দু’-এক দিনের মধ্যেই বাড়ি ফিরে আসবেন।”

বেশ কিছু দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন শিলিগুড়ির প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান  অশোক ভট্টাচার্য। জ্বর, সর্দি-কাশি ছিল। গত ১৪ জুন তাঁর প্রথম বার করোনা পরীক্ষা হয়। সেই রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় কিছুটা স্বস্তি আসে। কিন্তু দু’ দিন পর ১৬ জুন থেকে ফের অসুস্থ বোধ করতে শুরু করেন শিলিগুড়ির সদ্য প্রাক্তন মেয়র।

সে দিনই নিউমোনিয়া সন্দেহে তাঁকে মাটিগাড়ার কাছে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই বেসরকারি হাসপাতালেই অশোকবাবুর কিছু শারীরিক পরীক্ষানিরীক্ষা করা হয়। করোনা পরীক্ষার জন্য ফের একবার লালারস সংগ্রহও করা হয়।

বুধবার ১৭ জুন সেই রিপোর্ট আসে। দেখা যায়, কোভিড (Covid 19) পজিটিভ ৬২ বছরের বিধায়ক। তাঁকে মাটিগাড়ার কোভিড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। গত বছরই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন অশোকবাবু। ফলে তাঁকে নিয়ে কিছুটা হলেও চিন্তা ছিল।

অশোকবাবু মোটামুটি সুস্থ হয়ে যাওয়ার পর আরেক বার তাঁর লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে তা করোনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। সেই রিপোর্টও পজিটিভ আসে। ফলে হাসপাতাল থেকে তাঁর ছাড়া পাওয়ার সম্ভাবনা পিছিয়ে যায়।

অবশেষে বৃহস্পতিবার আবার তাঁর সোয়াব পরীক্ষা করা হয়। সিপিএমের দার্জিলিং জেলা সম্পাদক জীবেশ সরকার জানান, তাঁর রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। এই খবরে স্বস্তি পেয়েছেন সংশ্লিষ্ট সকলেই। দু’ সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে হাসপাতালে রয়েছেন অশোকবাবু।

Continue Reading
Advertisement
gst
শিল্প-বাণিজ্য17 mins ago

জিএসটি-তে বড়োসড়ো স্বস্তি, কমল জরিমানা

দেশ40 mins ago

এক মাসে ভারত-বাংলাদেশ পণ্যবাহী শতাধিক ট্রেন চলেছে

thunderstorm
রাজ্য58 mins ago

কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে সন্ধ্যার মধ্যে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা

বিদেশ1 hour ago

প্রধানমন্ত্রীর লাদাখ সফরের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চিনের প্রতিক্রিয়া

দেশ2 hours ago

কোভিড-১৯: হোম আইসোলেশনের নতুন নিয়ম জারি করল স্বাস্থ্যমন্ত্রক

দেশ3 hours ago

চ্যাংরাবান্ধা দিয়ে শুরু হল ভারত-বাংলাদেশ বাণিজ্য

দেশ5 hours ago

আচমকা লাদাখ সফরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, সেনার সঙ্গে বৈঠক

দেশ5 hours ago

১৫ আগস্টের মধ্যেই বাজারে চলে আসতে পারে ভারতের প্রথম করোনা-প্রতিষেধক ‘কোভ্যাক্সিন’

দেশ6 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২০,৯০৩, সুস্থ ২০,০৩২

ক্রিকেট2 days ago

আইসিসির চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন শশাঙ্ক মনোহর, এ বার কি সৌরভ?

DIY
ঘরদোর3 days ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

ক্রিকেট3 days ago

বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে গর্জে উঠতে আসন্ন টেস্ট সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জার্সিতে থাকছে ‘ব্ল্যাক লাইভ্‌স ম্যাটার’

বিজ্ঞান2 days ago

কোভাক্সিন কী? জেনে নিন বিস্তারিত

LPG
শিল্প-বাণিজ্য2 days ago

পর পর দু’মাস বাড়ল রান্নার গ্যাসের দাম

দেশ2 days ago

ভারতে রোগীবৃদ্ধির হার কমল অনেকটাই, সুস্থতার হার ৬০ শতাংশের কাছাকাছি

ক্রিকেট2 days ago

২০১১ বিশ্বকাপ কাণ্ড: ফাইনালে খেলা ক্রিকেটারকে জিজ্ঞাসাবাদ শ্রীলঙ্কা পুলিশের

নজরে