খবর অনলাইন ডেস্ক: তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর শনিবার প্রথম বার বিধানসভায় বক্তব্য রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তৃণমূলকে তৃতীয় বার রাজ্যের দায়িত্বে আনার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে মমতা বলেন, “অনেক চক্রান্ত হয়েছে। আমি জানি নির্বাচন কমিশনের প্রত্যক্ষ সহায়তায় কোথাও কোথাও রিগিং হয়েছে। এটা আমাদের কাছে খুব দু:খের, লজ্জার। আমরা আগেও বলেছি, এখনও বলছি, নির্বাচন কমিশনের সংস্কার হওয়া প্রয়োজন। কয়েকজন অবসরপ্রাপ্ত অফিসার একটা চিরকুট লিখে লোককে বদলি করে দিচ্ছেন। এ ভাবে কিন্তু ভারতবর্ষের গণতন্ত্র রক্ষা করা যাবে না”।

Loading videos...

তিনি আরও বলেন, “আজকে শুধু বাংলা জিতে গিয়েছে, তাই নয়। বাংলার মানুষ আজ প্রমাণ করে দিয়েছেন, বাংলার মেরুদণ্ড সব সময়ই শক্তিশালী, উচ্চ। বাংলার মেরুদণ্ড কখনোই মাথানত করে না”।

বিজেপি-র শীর্ষনেতৃত্বকে একহাত নিয়ে মমতা বলেছেন, “আমাদের বিরুদ্ধে পাইপ দিয়ে যেন টাকার স্রোত বওয়ানো হয়েছে। এই টাকায় ভারতের সবাইকে নিখরচায় ভ্যাকসিন দেওয়া যেত। মাত্র তিরিশ হাজার কোটি দিলেই সবাইকে নিখরচায় তা দেওয়া যেত। ৫০ হাজার কোটি খরচ করে সংসদ ভবন তৈরি করা হচ্ছে”।

এ বারের বিধানসভা ভোটে কেন্দ্র এবং রাজ্যে একই দলের সরকারের পক্ষে সওয়ার করে বিজেপি ‘ডবল ইঞ্জিন’ সরকারের প্রচার করেছিল। সেই প্রসঙ্গ তুলে মমতা বলেন, “বিজেপি ডবল ইঞ্জিন সরকারের প্রচার করেছিল। পাল্টা তৃণমূলের ডবল সেঞ্চুরি হয়ে গিয়েছে। কোথাও কোনো দাঙ্গা করার চেষ্টা হলে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে জানাবেন। ওরা প্রচারের সাম্প্রদায়িকতা ছড়ানোর চেষ্টা করেছিল। এখন হেরে গিয়েও সেই চেষ্টা করছে। কিন্তু বাংলার মানুষ এ সব মেনে নেননি এবং নেবেনও না”।

ভোট-পরবর্তী হিংসার ঘটনা নিয়ে চাপানউতোর চলছে। এ প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বিধানসভায় দাঁড়িয়ে বলেন, “বিধায়কদের অনুরোধ, তাঁরা এলাকায় শান্তি রাখুন। আমাদের আরও বেশি করে মানুষের কাছে পৌঁছতে হবে। কোভিডরোগীদের সাহায্য করতে হবে। আমি কিন্তু কোথাও কোনো রকমের অশান্তি বরদাস্ত করব না”।

আরও পড়তে পারেন: Post-Poll Violence: রাজ্যের মুখ্যসচিবকে তলব করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.