Mamata-Siliguri

ওয়েবডেস্ক: এত দিন পর্যন্ত জনসভাগুলিতে বিজেপির বিরুদ্ধেই বেশি করে সরব হতেন তিনি। কিন্তু সোমবার পূর্ব বর্ধমানের তিনটে সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুঝিয়ে দিলেন প্রতিপক্ষ হিসেবে কাউকেই ছোটো করে দেখতে রাজি নন তিনি।

বাম-কংগ্রেস-বিজেপিকে এক সারিতে বসিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, মোদীকে প্রধানমন্ত্রী বানাতে তিন দল এক হয়ে লড়াই করছে। আর তিনি মোদীকে গদিচ্যুত করতে মানুষকে সঙ্গে নিয়ে লড়ছেন।

পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর, দেওয়ানদিঘি এবং রায়নায় পর পর তিনটি নির্বাচনী জনসভা করেন মমতা। বিস্তীর্ণ এলাকা কৃষিপ্রধান হওয়ায় কৃষক স্বার্থে গত ৮ বছরে রাজ্য সরকার কী করেছে, প্রতিটি সভাতেই তার খতিয়ান দেন মমতা। এই প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘প্রতি বছরই ঝড়বৃষ্টিতে এই এলাকায় চাষের প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়। বন্যায় ফসল ডুবে যাওয়া, কিংবা খরায় পুড়ে যাওয়া, সবেতেই আমরা ক্ষতিপূরণ দিই। আগেও দিয়েছি, ভবিষ্যতেই সেই আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে।’’

আরও পড়ুন অমিত শাহ খেললেন মেরুকরণের তাস, রাহুল গান্ধীর নতুন নাম দিলেন যোগী আদিত্যনাথ

এই বর্ধমান এক কালে বামেদের শক্ত ঘাঁটি ছিল। এখন তাদের শক্তি ক্ষয়িষ্ণু হলেও কিছু কিছু এলাকায় বামেদের শক্তি রয়েছে। সেই উদ্দেশেই তাই মমতা বলেন, ‘‘যাঁরা এখনও বামপন্থী আছেন, তাঁরা বিজেপির কাছে বিক্রি হয়ে যাবেন না।’’ বিজেপির তরফ থেকে বার বার অভিযোগ করা হয় ধর্মীয় তোষণ করে চলেছেন মমতা। সেই অভিযোগকে এ দিন সপাটে উড়িয়ে দিয়ে মমতা বলেন, তোষণ নয় তিনি ধর্মীয় সহিষ্ণুতাতেই বিশ্বাস করেন। আর সেটাই বাংলার সংস্কৃতি।

এ ছাড়াও রোজকার সভার মতো এ দিনও পাঁচ বছর আগের প্রতিশ্রুতিতে কতটা ব্যর্থ হয়েছে বিজেপি, সেটাও মনে করিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী। বেকারত্ব বাড়া, ১৫ লক্ষ টাকা অ্যাকাউন্টে না আসা নিয়ে বিজেপিকে তোপ দাগেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here