মোদী-শাহকে তুলোধনা মমতার

কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মঙ্গলবার দাবি করেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এনআরসি নিয়ে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য দিচ্ছেন এবং তিনি বিড়ম্বনায় পড়ছেন এই ভেবে, যে কে সত্যি কথা বলছেন?

এ দিন সিএএ-এনআরসি পদযাত্রা শেষে বেলেঘাটার জনসভায় বক্তব্য রেখে মমতা বলেন, “বিজেপির চেয়ে বড়ো কোনো জালিয়াতি নেই” । তাঁর কথায়, “প্রধানমন্ত্রী বলছেন, এনআরসির দেশব্যাপী বাস্তবায়ন নিয়ে কোনো আলোচনা বা প্রস্তাব হয়নি। তবে কিছুদিন আগে বিজেপি সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছিলেন যে এনআরসি প্রক্রিয়াটি সারা দেশে পরিচালিত হবে”।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “উভয়ের বক্তব্যই পরস্পরবিরোধী। আমরা আশ্চর্য হই যে কে সত্যি কথা বলছেন। তাঁরা আসলে বিভ্রান্তি সৃষ্টির চেষ্টা করছেন”।

গত রবিবার প্রধানমন্ত্রী মোদী দিল্লির একটি সমাবেশে বলেছিলেন, “এনআরসির দেশব্যাপী মোটেই হচ্ছে না। আমি ভারতের ১৩০ কোটি নাগরিককে বলতে চাই যে আমার সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে ২০১৪ সাল থেকে এনআরসি নিয়ে কোথাও কোনো আলোচনা হয়নি। সুপ্রিম কোর্টের আদেশের পরেই এই মহড়াটি অসমে হয়ে হয়েছিল”।

তৃণমূলনেত্রী বলেন, “আমরা যা বলছিলাম তা সাধারণ মানুষের মনে রয়েছে। বিজেপি যা কিছু বলেছে , সেটাও সাধারণ মানুষের মনে থাকছে। এর পর জনগণই সিদ্ধান্ত নেবে”। তিনি বলেন, বিজেপি দেশকে টুকরো করতে চাইছে, কিন্তু মানুষ তা হতে দেবেন না।

এ দিন সিএএ এবং এনআরসির বিরুদ্ধে বিধান সরণির বিবেকানন্দ স্ট্যাচু থেকে গান্ধী ভবন পর্যন্ত পদযাত্রায় অংশ নেন মমতা। তিনি বলেন, ঝাড়খণ্ড বিধানসভা ভোটে পরাজিত করে “অহংকারী” বিজেপির জবাব দিয়েছে সে রাজ্যের মানুষ। তাঁর হুঁশিয়ারি, “কেউ যদি মনে করে দেশে একমাত্র বিজেপি থাকবে, আর কেউ থাকবে না,তা হলে ভুল করছেন। আগামী দিনে আপনারা সরকারে থাকবেন কি না, সেটা দেশের মানুষই ঠিক করবেন”।

প্রসঙ্গত, এ দিনই অমিত শাহ সংবাদ সংস্থা এএনআইকে বলেন, “এই (দেশব্যাপী এনআরসি) নিয়ে বিতর্ক করার দরকার নেই, কারণ এখনও এটা নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। প্রধানমন্ত্রী মোদী ঠিক বলেছেন, মন্ত্রিপরিষদ বা সংসদে এ নিয়ে এখনো কোনো আলোচনা হয়নি”।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.